পাতা:এলিজিবেথ.pdf/১৪৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

○○ b" এলিজিবেথ। । বলিয়৷ কিছুমাত্র ভীত হইও না। যিনি অনাথের নাথ ও জগতের অভিভাবক, তিনি তোমাকে কদাচ পরিত্যাগ করিয়া ও বিস্মৃত হইয়া থাকিতে পারিবেন না। তিনি বিশ্বের রক্ষিতা ও ভর্ত হইয়। তোমাকে রক্ষণাবেক্ষণ করিতে কদাচ বিমুখ হইবেন না। যদি তিনি তোমাকে আপাততঃ ইহা অপেক্ষাও অধিকতর দুরবস্থায় নিক্ষেপ করেন, তাহ। হইলেও পরে তোমাকে সমধিক সুখভাগিনী করিবেন, তাহাতে আর কিছুমাত্র সংশয় নাই। যিনি গগণবিহারী খেচরগণেরও অর্ণহার যোগাইতেছেন, এবং যিনি অবলীলাক্রমে সাগরতীরের বালুক সকল গণনা করিতে সমর্থ হন, তিনি যে তোমাকে পরিত্যাগ করেন কোন মতেই ইষ্ঠা সম্ভব হইতে পারে না।” ধৰ্ম্মপিতা মহাশয় এই বলিয়া এলিজিবেথের দিকে অপনার হস্তখানি প্রসারণ করিলেন । এলিজিবেথ গেই হস্তখানি ধারণ করিয়া কাদিতে কাদিতে কহিলেন, “ পিতঃ ! অামি আপনাকে ছাড়িয়া কি প্রকারে প্রাণ ধারণ করিয়া থাকিব।” এই কথায় সেই বৃদ্ধবর উত্তর করিলেন, “ বৎসে ! ইহা অামার ইচ্ছা নয়, ঈশ্বরের ইচ্ছা, কদাচ অন্যথা হইবার নহে। কিন্তু তুমি ইহাতে কিছুমাত্র ভীত হইও না, ধৈর্য্য পূৰ্ব্বক তাহার নিয়ম পালনে প্রবৃত্ত হও । আর আমিও অবিলম্বে স্বৰ্গরাজ্যে গমন করিতেছি। তথায় গমন করিয়াই অগ্রে পরমেশ্বরের চরণে শরণ লইল, এবং তোমার ও তোমার পিতা মাতার জন্য সাধ্যানুসারে প্রার্থনা করিতে ক্রটি করিব না ।” এই সকল কথা কহিয়৷ ধৰ্ম্মপিতা মহাশয় আর কোন কথা স্পষ্টরূপে উচ্চারণ করিতে পারিলেন না, তাহার, ওষ্ঠাধর কেবল স্পন্দিত হইতে লাগিল, কিন্তু কোন শব্দই শ্রত হইল না। দেখিতে দেখিতে সেই তৃণশয্যায় উত্তান