পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/১৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সাময়িক প্রসঙ্গ । ー。 রুষ-জাপান যুদ্ধ—এসিয়ার পূর্ব প্রান্তের ভীষণ সমরানল আজিও আপনার জ্বালাময়ী শিখা বিস্তার করিয়া বিশ্বদাহের জন্য অগ্রসর হইতেছে। রুসিয়া ও জাপান কেহই পশ্চাৎপদ হইতে ইচ্ছক হইতেছেন না। লিওয়াংএর যুদ্ধের পর সাহুতে এক বিরাট সমরের অভিনয় সংঘটিত হইয়াছিল। এই যুদ্ধে রুসিয়া জাপানের দর্প চূর্ণ করিবার জন্য বদ্ধপরিকর হইয়াছিলেন। জাপান ও দ্রা আপনার বিজয়গৌরব রক্ষার জন্য বারম্বার বিজয়লক্ষ্মীর নিকট সর্বান্তঃকরণে প্রার্থনা করিয়াছিলেন। সুখের বিষয়, এবারও বিজয়লক্ষ্মী জাপানের মস্তকেই আশীৰ্ম্মাল্য নিক্ষেপ করিয়াছেন। যদিচ সাহুর যুদ্ধও যুদ্ধনীতিবিশারদগণের . নিকট চুড়ান্ত বলিয়া গৃহীত হয় নাই, তথাপি ইহাতে জাপানের গৌরব উজ্জলতর ভাবে পরিস্ফুট হইয়াছে। এই যুদ্ধে রুসিয়ার পক্ষে যষ্টি সহস্রেরও অধিক হতাহত হইয়াছে। জাপানেরও প্ৰায় পঞ্চদশ সহস্ৰ বীর সমরক্ষেত্রে জীবন বিসর্জন দিয়াছে ও আহত হইয়াছে। আর্থার বন্দর অধিকার করার জন্যও জাপান যারপর নাই চেষ্টা করিতেছেন। ক্রমাগত গোলানিক্ষেপে আর্থার বন্দরের গৃহরাজি ভূমিসাৎ হইবার উপক্রম হইয়াছে। কিন্তু রুসীয় বীর ষ্টসেল । আজিও বিপক্ষের নিকট মস্তক অবনত করেন নাই। জাপান ইহার অনেক- | গুলি দুর্গ অধিকার করিয়াছেন । সম্ভবতঃ অল্প দিনের মধ্যেই আর্থার বন্দর ৷ জাপানের হস্তগত হইবে । এই ভীষণ সমরানলে আহুতি প্ৰদানের জন্য রুসিয়া । আপনার সুপ্ৰসিদ্ধ বণ্টিক বাহিনীকে প্রেরণ করিয়াছেন। নীল সমুদ্রের তরঙ্গলহরীকে বিক্ষোভিত করিয়া বন্টিক বাহিনী সদৰ্পে প্রশান্ত মহাসাগর অভিমুখে ধাবিত হইতেছে। কিন্তু সৰ্ব্বারান্তে ইহা এক ৰিভ্ৰাট ঘটাইয়া বসিয়াছে। উত্তর: সমুদ্রে ইংরাজের কয়েক খানি ক্ষুদ্র মৎস্য-তরীর উপর গোলানিক্ষেপে তাহাদেৱ