পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/২০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সাময়িক প্ৰসঙ্গ । রুস-জাপানের যুদ্ধ-রূস-জাপান বুদ্ধ কখনও মন্দীভূত কখনও বা প্ৰজ্জ্বলিতভাবে আজিও সুদূর প্রাচ্যে বিভীষিকা উৎপাদন করিতেছে। সাহুর যুদ্ধের পর মুকডেনের নিকট একটি ভয়ানক যুদ্ধ হইবে বলিয়া সকলে আশঙ্কা করিতেছে। এই যুদ্ধের উপর এই ভয়াবহ সমরের অনেক বিষয় নির্ভর করিতেছে। ক্রমাগত পরাজিত হইয়া রুস্)-ভালুক আরও উত্তেজিত হইয়া উঠিতেছে। জাপানকে বিপবাস্ত করার জন্য তাহার সমস্ত চেষ্টা সমবেত করিতে ভল্লুক প্ৰাণপণে যত্ন করিতেছে। কিন্তু বিজয় লক্ষ্মী এখনও জাপানের পাশ্চাতে থাকিয় তাহাকে অভয়-বাণী প্ৰদান করিতেছেন ! মুকডেনের নিকট যাহাই হউক আর্থার বন্দরের অবস্থা অতি শোচনীয়। বীরবার ষ্টসেল আর তাহ রক্ষা করিতে সমর্থ হইতেছেন না। রুসবীরগণ ক্ৰমে ক্ৰমে ধরাশায়ী হইতেছে। তথাপি তাহারা অদ্ভুত বীরত্ব প্রদর্শন করিতেছে। কিন্তু বলদৃপ্ত জাপান আর্থার বন্দর হস্তগত করিবার জন্য যেরূপ চেষ্টা করিতেছে তাহাতে আর্থার বন্দরের পতন আনিবাৰ্য্য। ষ্ট্রসেলের শত চেষ্টা জাপানের মহাশক্তির প্রতিরোধ করিতে সক্ষম হইতেছে না। অল্পদিনের মধ্যে আর্থার বন্দরে যে জাপানের বিজয় নিশান উত্থিত হইবে তাহাতে সন্দেহ নাই। সমস্ত পৃথিবী সেই অভূতপূৰ্ব্ব দৃশ্য দেখিরার জন্য উৎসুক হইয়া রহিয়াছে। আর্থার বন্দরের পতন হইলে মুকডেনের নিকট আবার আর এক বিরাট যুদ্ধের আয়োজন হইবে। জাপান ও রুসিয়া উভয়েই তখন বন্ধ-পরিকর হইয়া পরস্পর পরস্পরকে বিধ্বস্ত করার জন্য প্ৰয়াস পাইবে । সকলেই সেই যুদ্ধের জন্য অপেক্ষা করিতেছে। এ দিকে বন্টিক-বাহিণী ও ক্রমে লোrম আগসব হইতেছে। কিন্তু তাহার পহুছিবার পর্বে আর্থার বন্দবোৰ পতন