পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/২৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্ৰাচীন ঐতিহাসিক ফর্দ । २१७ পাঠ্যাবস্থায় ও বিষয়ের আলোচনার সেরূপ সুবিধা ঘটে নাই, কাজেই উহা ঐ অবস্থায়ই রহিল। কয়েক বৎসর পর জনৈক বন্ধুর নিকট একখানি “পুণ্য” পত্রে “পীটী দর পীড়ী” নামক প্ৰবন্ধ পাঠ করিয়া, মৎসংগৃহীত ফৰ্দগুলির ঐতিহাসিক গুরুত্ব বিলক্ষণ উপলব্ধি হইল । পীটী দর পীড়ীর ভূমিকা লেখক সত্যই বলিয়াছেন,-“যে ইতিহাসের মূল বেদ, যে ইতিহাসের প্রকাণ্ড কাণ্ড রামায়ণ ও মহাভারত, রাজতরঙ্গিণী যাহার শাখা, নানা প্ৰাকৃত ভাষায় ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ইতিহাস সমূহ যাহার পল্লব দল, আমাদিগের আলোচ্য ইতিহাসটা ভারতের সেই ইতিহাস বৃক্ষের একটী অতি ক্ষুদ্র পল্লবস্বরূপ ।” অতীতের অন্ধকারাচ্ছন্ন অতল-গর্ভে কত লীলা খেলার চিত্ৰ সমাহিত আছে কে বলিবে ! আজি যাহাকে ‘হঁ” বলিতেছি, অনুসন্ধান ও প্ৰমাণে কালি তাহাকে “না” করাইল ; এইরূপ আজি যা ‘না” ছিল, কালি তাহা ‘হঁ|” হইতেছে । কি আশাচৰ্য্যের বিষয় ! যে বঙ্গাধিপ বল্লালসেনের বিধান বর্ণশ্রেষ্ঠ ব্ৰাহ্মণ হইতে ব্ৰাহ্মণেতার জাতিসমূহ সসন্ত্রমে আজিও বহন করিতেছেন,-সেই অসীম প্রতাপান্বিত ভারত-বিশ্রুত নিরাধিপের জন্ম মৃত্যু ও স্থান নির্ণয় তো দুরের কথা, তাহার পিতার নাম ও জাতি পৰ্য্যন্ত ও সৰ্ব্ববাদীসম্মত রূপে নিৰ্ণীত হইল না ! জানি না। সময়ে উপস্থিত ফৰ্দের কোন মহাপুরুষ বল্লালের পিতৃত্বে দাবী করিয়া বসিবেন কি না ! তাই এই ফর্দের অভিনব্বত্বে অশ্রদ্ধা করিতে সাহস হয় না । পরন্তু ফর্দটী বিশেষ সমাদরযোগ্য । আদ্য ঐতিহাসিক চিত্রের পাঠকগণকে মদাবিস্কৃত ঐতিহাসিক ফর্দ কয়েকখানি উপহার দিত্তেছি, যদি কোন অনুসন্ধিৎসু পাঠক ফর্দের লিখিত অশ্রুতপুৰ্ব্ব দুই একজন রাজারও সন্ধান পান, তাহা হইলে শ্রম সফল বোধ করিব । প্ৰায় এক ফুট দীর্ঘ ৫ই ইঞ্চ প্ৰস্থ বিশিষ্ট সাতখানি ‘তুলট” কাগজের উভয় পৃষ্ঠে লেখা। সর্বোপরি “শ্ৰীশ্ৰীরাম” তন্নিমে “১১৪৯ সাল” বাম দিকে তিৰ্যাগ ভাবে “আমল রাজাবৰ্গ” লিখিত আছে । তন্নিয়ে “হেডিং” এইরূপ লেখা “রাজা যুধিষ্ঠির আদি জন বর্ষ মাস দিন--” হস্তিনাধিপ রাজা যুধিষ্ঠির হইতে দিলীপতি আহমদ সাহ বাদসাহ পৰ্য্যন্তের নাম, S7