পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জগৎশেঠ । R বিভূষিত হইয়া অদ্বিতীয় ধনকুবের রূপে ধরাধামে অবতীর্ণ হইয়াছিলেন, যাহাঁদের ঐশ্বৰ্য্যপ্রবাহ দ্বিতীয় জাহ্বীধারার ন্যায় আসমুদ্র হিমাচল পরিপ্লাবিত করিয়া প্ৰবাহিত হইয়াছিল, তঁহাদের কথা যে লোকমুখে প্ৰবাদকাহিনীর ন্যায় সর্বত্ৰ পরিব্যাপ্ত হইয়া পড়িবে, তাহাতে আর বিস্ময়ের কথাকি এই গৌরবগীতি ভারতবর্ষ অতিক্রম করিয়া পৃথিবীর অন্যান্য দেশ দেশান্তরেও বিস্তুত হইয়া পড়িয়াছিল। সুদূর ইউরোপখণ্ডেও জগৎশেঠের ঐশ্বৰ্য্যকাহিনী শনৈ: শনৈঃ প্ৰবেশলাভ করিয়াছিল। এখন আর সে দিন নাই। এখন রথচাইল্ডের কল্যাণে আধুনিক ইংরাজ স্বকীতবক্ষে অযুত-লৌহ-বত্মে ভারতভূমিকে শৃঙ্খলিত করিয়া ফেলিয়াছেন!! জাহ্ববী, যমুনা, নৰ্ম্মদ, কাবেরী, ব্ৰহ্মপুত্ৰ বন্যাতাড়িত জলপ্রবাহের ন্যায় খরবেগে ইংরাজবণিকের ঐশ্বৰ্য্যভাণ্ডার সুদূরেশ্বেতদ্বীপে-বহন করিবার জন্যই প্রবাহিত হইতেছে। কিন্তু ইংরাজবণিকের মস্তকে সৌভাগ্যলক্ষ্মীর শুভাশীৰ্ব্বাদ নিপতিত হইবার পূৰ্ব্বে শেঠ-বংশের ঐশ্বৰ্য্যকাহিনী সমস্ত ইউরোপখণ্ডকে চমকিত করিয়া তুলিয়াছিল। এত ঐশ্বৰ্য্যের কথা অনেকে কল্পনায় ধারণা করিতে না পারিয়া, অনেক সময়ে রত্নপ্ৰসবিনী ভারতভুমির সকল কাহিনীই আকাশকুসুমের ন্যায় অলীক বলিয়া অনুমান করিতে বাধ্য হইতেন ! সেকালের সমগ্ৰ পরিজ্ঞাত প্রদেশের মধ্যে জগৎশেঠের ন্যায়। আর কেহ ধনশালী ছিলেন। কিনা সন্দেহ। এই বিশ্বাসের বশবৰ্ত্তী হইয়া ভারতবর্ষের মোগল বাদশাহগণ মুর্শিদাবাদের শেঠদিগকে “জগৎশেঠ” উপাধিতে ভূষিত করিয়াছিলেন। যাঁহাদিগের ধনভাণ্ডারের সহিত বিপুল ভারতসাম্রাজ্যের প্রায় সমস্ত কাৰ্য্যেরই কিছু না কিছু সংস্রব থাকার পরিচয় পাওয়া যাইতেছে, “জগৎ- , শেঠ” উপাধি তাহদের পক্ষে অধিকতর গৌরবের বিষয় নহে। উহা তঁহাদের । পক্ষে একরূপ “ভূতাৰ্থব্যাহৃতি” বলিলেও অত্যুক্তি হয় না। ধনসম্পত্তিতে র্তাহারা যেরূপ শ্রেষ্ঠ ছিলেন, সেইরূপ ভারতসাম্রাজ্যে র্তাহদের ক্ষমতাও অপরিসীম হইয়া উঠিয়াছিল। অর্থ ও ক্ষমতাবলে জগৎশেঠগণ। অষ্টাদশ শতাব্দীর ভারতবর্ষে এক অভাবনীয় কাণ্ডের অবতারণা করিয়া