পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৩৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


W8 ঐতিহাসিক চিত্ৰ । ১ । ‘ভগবানের প্ৰেম ভখারী জনৈক সামান্য ভূতা। এই স্থানে শায়িত আছেন। তিনি ভগবানানুগৃহীত ব্যক্তিগণের পরম বন্ধু, জ্ঞানবানদিগের হি তাভিলাষী, ও ভগবানের অবিশ্বাসীগণের ঘোর শত্রু ছিলেন । তাহার নাম আলাঘ খাঁ জাহান আলী ছিল। হিজরী ৮৬৩ সালের ২৬শে জেলাহিজ্জ। বুধবার রাত্রে তিনি পৃথিবী ত্যাগ করিয়া ভগবানের রাজ্যে গমন করিয়াছেন। পরদিন বৃহস্পতিবার তঁাহার সমাধি হয় । , ২ । এই সমাধি-মন্দির খাজাহান আলীর স্বগের উদান । ভগবান তাহার

  • ठ दिन कद्धन्ना |”

সমাধি-মন্দিরের অনতিদূরেই রন্ধনশালা ও অন্যান্য কতকগুলি ক্ষুদ্র গৃহ আছে । ইহার অনতিদূরেই একটী প্ৰকাণ্ডগৃহের ভগ্নাবশেষ দৃষ্ট হয়। ইহাই খাঞ্জালী সাহেবের অতিথিশালা। এখানে বসিয়া প্ৰত্যহই দীন দুঃখী অতিথি অভ্যাগত ও অন্যান্য শত শত লোক পরে তাষীরূপে আহার কারিত । খ, গুঞ্জালী সাহেব নিজে উপস্থিত থাকিয়াই তাহার उद्धृf ? 6िठन् | ইহা ব্যতীত খাঞ্জালী সাহেব, আর নো সমস্ত মসজিদ, অট্টালিকা, বড় দরগা, ছোট দরগা নামে পীরের আস্তানা ও বৃহৎ তোরণাদি নিৰ্ম্মাণ করিয়াছিলেন, সে সকল কালের কঠোর অত্যাচারে ক্ৰমে ভগ্ন ও স্থানচ্যুত হইয়া ইতস্ততঃ বিক্ষিপ্ত ভাবে চতুর্দিকে স্ত, পাকারে অতীতের সাক্ষীরূপে পড়িয়া আছে মাত্র। এই সমস্ত ভগ্ন ও অভগ্ন অট্টালিকা গুলির দক্ষিণ দিকেই খাঞ্জালীর একটী প্ৰকাণ্ড দীঘি। এই দীঘি সম্বন্ধে অনেক গল্প শুনা যায়, তাহার একটা এস্থানে উল্লেখ করিলাম । “ভাল পানীয় জলের অভাব হওয়ায় খাঞ্জালী সাহেব দীঘি খনন করিতে আরম্ভ করেন। তঁহার লোকেরা খনন করতে করিতে নীচে অনেকদূর গিয়াছে, এমন সময় তাহারা একটী মন্দির দেখিতে পাইল । মন্দিরের দ্বার ভিতর দিক হইতে রুদ্ধ ছিল। তাহারা অনেক চেষ্টা করিল, কিন্তু কিছুতেই দ্বার খুলিতে সমর্থ হইল না। এ সংবাদ খাঞ্জালীর নিকট পৌছলে তিনি ঘোড়া ছটাইয়া মন্দিরের নিকট উপস্থিত হইলেন। মন্দিরের দ্বার তখনও রুদ্ধ, কিন্তু খাঞ্জালী সাহেব