পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


হেষ্টিংস ব্যঙ্গ-চিত্ৰ । ve অত্যাচারের অনুসন্ধানে প্ৰবৃত্ত হইলেন। ভারত কাউন্সিলের সুযোগ্য সদস্য ফ্রান্সিস সাহেব তাহাদের নিকট হেষ্টিংসের সমস্ত কীৰ্ত্তি প্ৰকাশ করিয়া দিলেন, ও তাহার প্রমাণাদিও উপস্থাপিত করিলেন । তাহার পর কমন্স সভা হইতে লর্ড সভায় হেষ্টিংসের নামে अडिशॉ" আনীত হইল। সেই অভিযোগের বিচারের জন্য ওয়েষ্টমিনষ্টার হলে কিঞ্চিদধিক সপ্তবর্ষ কাল লর্ডগণ সমবেত হইয়াছিলেন। ১৭৮৮ খৃঃ অব্দের ১৩ই ফেব্রুয়ারি হেষ্টিংসের বিচার আরম্ভ ও ১৭৯৫ খৃঃ অব্দের ২৩শে এপ্রিল তাহার রায় প্ৰকাশিত হয়। যদিও হেষ্টিংস নিস্কৃতি লাভ করিয়াছিলেন, তথাপি এই সাত বৎসর তাহকে আসামী হইয়া কালব্যাপন করায় তাহার সমস্ত অর্থ নিঃশেষ হইয়া যায়, এবং তিনি সকল বিষয়ে একবাক্যে নির্দোষ বলিয়াও अॐिश्रिङ शून् नारुँ । ওয়েষ্টমিনষ্টার হলে যৎকালে হেষ্টিংসের বিচার আরম্ভ হয়, তৎকালে ইংলণ্ডের জনসাধারণে" এবিষয় লইয়া প্ৰতিনিয়ত আলোচনা করিত। এই আলোচনার ফলে হেষ্টিংস সম্বন্ধে অনেকগুলি ব্যঙ্গ-চিত্ৰ প্ৰকাশিত হইয়াছিল, তাহদের মধ্যে কতকগুলি অ্যাপি বিটিশ মিউজিয়মে দেখিতে পাওয়া যায়। জিলরে, সায়ার প্রভৃতি তাৎকালিক প্ৰসিদ্ধ ব্যঙ্গ-চিত্রকরগণও ইহাতে যোগদান করিতে ক্ৰটি করেন নাই। তদ্ভিন্ন অন্যান্য ቅኞቓማ¶ আপনাদের কৌশল প্রদর্শনের চেষ্টা করিয়াছিলেন । হেষ্টিংস সম্বন্ধে সাধারণের মধ্যে কিরূপ আন্দোলন আলোচনা হইত, ঐ সমস্ত বঁটাঙ্গী-চিত্ৰ সুস্পষ্টরূপে তাহা প্ৰতিপাদনা করিতেছে। ঐ সমস্ত চিত্ৰ হইতে বুঝা যায় যে, ইংলণ্ডের জনসাধারণ হেষ্টিংসের অত্যাচার-কাহিনীকে একেবারে অবিশ্বাস করে নাই। কেবল তাহাই নহে, যে সমস্ত রাজপুরুষগণ হেষ্টিংসের পক্ষ অবলম্বন করিয়াছিলেন, তাহারাও উক্ত চিত্ৰসমূহেরও বিষয়ীভূত হইয়াছিলেন। ইংলণ্ডেশ্বর তৃতীয় জর্জ ও র্তাহার মহিষী পৰ্য্যন্তও তাহদের লক্ষ্যস্থানীয় হইয়া উঠিয়াছিলেন। হেষ্টিংসের প্রতি রাজা ও রাণীর সহানুভূতিতে সকলের মনে এইরূপ সন্দেহ হইয়াছিল যে, তাহারা হেষ্টিংসের ভারতলুষ্ঠিত দ্রব্যের |