পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৪১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সরকার বাজুহা । 80S জাখোরানে তিনি একটী উদ্যান প্ৰতিষ্ঠা করেন । তাহা এখনো ৰিদ্যমান আছে । ১৮৭৬ সালে নিতচন্দর নামে একখানি পুস্তক সরল হিন্দী ভাষাতে সম্পাদন করেন, ইহা সকল সম্প্রদায়েরই পাঠোপযোগী হইয়াছে। সরকার বাজুহা বাঙ্গলায় যখন নছরত সাহি স্বাধীন রাজত্ব প্ৰতিষ্ঠা করিতেছিলেন। সেই সময়ে ইব্রাহিম লোদী দিল্লীর সিংহাসনে প্ৰতিষ্ঠিত । ১৫২৬ খৃষ্টাব্দে পাণিপথের ভীষণ যুদ্ধে ইব্রাহিম লোদীর পরাজয়ের সঙ্গে সঙ্গে মোগল গৌরব-রবি ভারতাকাশে সমুদিত হয় । মোগল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা বাবর চাৰি বৎসর মাত্র রাজত্ব করিয়া কালগ্ৰাসে পতিত হইলে তৎপুত্র হুমায়ুন সিংহাসনে অধিরোহণ করেন। হুমায়ুনের সময়ে সেরসহ বাঙ্গালা অধিকার করিয়া দিল্লীর সিংহাসন পঘুর্ণদন্ত করিয়া মোগল সিংহাসন কাড়িয়া লয় । সম্রাট হুমায়ুন পলায়ন করিয়া পরিত্ৰাণ লাভ করেন। সেরসহ সিংহাসন গ্ৰহণ করিলে পর একবার বাঙ্গলায় ভূমি বন্দোবস্ত হয় । সেরসহ বঙ্গদেশকে কয়েক বিভাগে বিভক্ত করিয়া বাঙ্গলার রাজকর ও ভূমি বন্দোবস্ত করেন ও প্রদেশে প্রদেশে শাসন কৰ্ত্তা নিযুক্ত করেন। তাহার সময়ে ব্ৰহ্মপুত্র তীর হইতে সিন্ধু তীর পর্য্যন্ত একটি সুবৃহৎ বৰ্ত্ত । প্ৰস্তুত হয়। T ১৫৫৬ খৃষ্টাব্দে মোগল কুলতিলক আকবর সাহ দিল্লীর সিংহাসনে আরোহণ করেন। বাঙ্গালা দেশ তখন ও পাঠানদিগের শাসনাধীন থাকিয়া স্বাতন্ত্র রক্ষা করিতেছিল। ২৫৭৫ খৃষ্টাব্দে মোগলমারি নামক স্থানে মোগল পাঠানের ভীষণ যুদ্ধে পাঠানেরা পরাজিত হইয়া উড়িষ্যা দুৱীভূত হইলে বাঙ্গলার অংশ আকবর সাহের T Ce