পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৫৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জগৎশেঠ। . v ( RS, একজন ছিলেন। আমরা মুতাক্ষরীণকারের এরূপ উক্তির মৰ্ম্ম বুঝিতে পারি নাই। কারণ আমরা জানিতে পারি যে, নবাব আলিবর্দী খাঁ সিরাজ* উদ্দৌলাকে মৃত্যুকালে অনেক উপদেশ দিয়া যান। তিনি তঁহাকে কোরাণ স্পর্শ করাইয়া মদ্যপান হইতে নিবৃত্ত করাইয়াছিলেন । তাহার পর ইংরেজদিগের সম্বন্ধে তিনি তঁহাকে অমূল্য উপদেশ দিয়া যান। অতএব তিনি যে সিরাজউদ্দৌলাকে নিতান্ত অপদাৰ্থ মনে করিতেন, ইহা আমাদের মনে হয় না। আমরা ; পরে তাহার উল্লেখ করিতেছি। তদ্ভিন্ন আমরা দেখিতেছি, সিরাজ তিন দিন পৰ্যন্ত কেন, মৃত্যুকাল পৰ্য্যন্ত তাঁহার মাতামহীর উপদেশে চালিত হইয়াছিলেন। মাতামহীর সহিত কখনও তাহার অসদ্ভাব ঘটে নাই। সেইজন্য মুতাক্ষরীণকারের উক্ত উক্তি জনশ্রুতি ব্যতীত আর কিছু বলা যাইতে পারে না। দুঃখের বিষয় এই যে, তঁহার উক্তিতে সিরাজের প্রকৃত চরিত্র বুঝা যায় না । র্তাহার গ্ৰন্থ অনেক স্থানেই ইহার সাক্ষ্য প্রদান করিয়াছে। নবাব আলিবর্দী খাঁ সিরাজউদ্দৌলাকে মৃত্যুর পূর্বে ইংরেজদেগের সম্বন্ধে যে অমূল্য উপদেশ প্রদান করিয়াছিলেন, আমরা এস্থলে তাহার মৰ্ম্ম প্ৰদানু করিয়াছি। কারণ, সেই উপদেশের জন্যই সিরাজের সহিত ইংরেজদিগের বিবাদ উপস্থিত হয়, এবং সেই বিবাদে জগৎশেঠ প্ৰভৃতি লিপ্ত হইয়া বাঙ্গালায় এক ভয়াবহ কাণ্ডের অবতারণা করিয়াছিলেন । সুতরাং পরবত্তী অধ্যায় বিশদভাবে বুঝিবার জন্য এস্থলে তাহার সংক্ষিপ্ত মৰ্ম্ম প্রদত্ত হইতেছে। নবাব সিরাজউদৌল্লাকে এইরূপ বলিয়া যান যে, ‘ইংরেজদিগের ক্ষমতা যেরূপ বাড়িতেছে, তাহাতে তুমি প্ৰথমে তাহাদিগকে দমন করিবে । ইংরেজদিগকে দমন করিতে পারিলে অন্যান্য ইউরোপীয়েরা তোমাকে আর অধিক কষ্ট প্ৰদান করিবে না। তাহাদিগকে কুঠী নিৰ্ম্মাণ করিতে বা সেনা রাখিতে দিও না। তাহা করিতে দিলে তোমার রাজ্যের অস্তিত্ব থাকিবে না। ঈশ্বর আমাকে ব্যাচাইয়া রাখিলে আমি তোমাকে নিরাপদ করিয়া যাইতাম । ইংরেজাদিগকে দমন করিবে। তাহদের অভিসন্ধি হইতে বুঝা যাইতেছে, তোমার রাজ্য বিপদসম্বুল হইবে। তাহারা অল্পদিন হইল আঙ্গিয়ারাজ্য অধিকার করিয়াছে \08