পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/৫৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৫৩৬
ঐতিহাসিক চিত্র।

অতএব আমরা আপনার উপযুক্ত হইতে পারি না। ইহা আপনাদের রীতি হইতে পারে, কিন্তু সম্রাটদিগের এরূপ রীতি গর্হিত।” ইহা শ্রবণে খালিফ ক্রোধান্ধ হইয়া কাসিমের নিকট এই আজ্ঞা পাঠাইলেন যে, তুমি আপনাকে একখণ্ড চর্ম্মে অপরের দ্বারা আবৃত করাইয়া আমার নিকট প্রেরিত হইবে। কাসিম আজ্ঞাপত্র প্রাপ্তিমাত্র সকলকে বলিলেন যে, আমাকে চর্ম্মে আবৃত কর। তাহাই করা হইল। চর্ম্মাবৃত হইয়া কাসিম দুইদিনের মধ্যে প্রাণত্যাগ করিলেন। তাহার চর্ম্মাবৃত দেহাবশেষ খালিফের নিকট প্রেরিত হইল। তখন খালিফ দাহিরের কন্যাদ্বয়কে ডাকাইয়া সেই দেহ দেখাইলেন এবং বলিলেন যে, দেখ আমার অনুজ্ঞায় কাসিম আপন প্রাণ দান করিয়াছে। তখন দাহিরের জ্যেষ্ঠা কন্যা অবগুণ্ঠন উন্মোচন করিয়া বলিলেন যে, তাঁহারা মিথ্যা বলিয়া তাঁহাদের পিতৃহত্যার প্রতিশোধ লইয়াছেন। খালিফ ইহাতে ক্রোধান্বিত হইয়া কন্যাদ্বয়কে একটী প্রকোষ্ঠে বদ্ধ করিয়া উহার দ্বার ইষ্টকদ্বারা চিররুদ্ধ করিবার আদেশ দিলেন।[১]

  1. চচ  তাহার ভ্রাতা চন্দর
    রাজ।
    বর্ষিয় দাহির মাঞিবাই
    (স্ত্রী বাই ও লাদি)

    জয়সিয় যুকি সূর্য্যাদেও পরমলদেও
    (কন্যা) (কন্যা)

     ৬৪১ খৃষ্টাব্দে চচবংশীয় এক ব্যক্তি সিন্ধু প্রদেশে ব্রাহ্মণ রাজ্য স্থাপন করেন তাহারও পূর্ব্ব হইতে চচ জনপদের নামকরণ হইয়া থাকিবে।

     পূর্ব্বে সিন্ধুপ্রদেশে রায়বংশ রাজত্ব করিতেন, এক জন চচ ব্রাহ্মণ গিয়া তাঁহার নিকট হইতে রাজ্য কাড়িয়া লন। কাহারও মতে ইনিই প্রথম চতুরঙ্গ খেলা বাহির করেন।

     চচবংশ ৪৭৯ খৃষ্টাব্দ হইতে প্রায় ১৩৭ বর্ষ প্রবল প্রতাপে রাজত্ব করিয়াছিলেন। আরবীয়গণ এই বংশ উচ্ছেদ করিবার উদ্দেশে সিন্ধুপ্রদেশে অগমন করেন। এই উপলক্ষ করিয়া ৭৫৩ খৃষ্টাব্দে আরবী ভাষায় “চচ নামা’ নামক গ্রন্থ রচিত হয়। ১২১৬ খৃষ্টাব্দে মুহম্মদ নামে এক ব্যক্তি “তারিখ ই হিন্দ্‌ ও সিন্দ্‌” নাম দিয়া এই গ্রন্থ পারস্য ভাষায় অনুবাদ করেন। বিশ্বকোষ।