পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র - পঞ্চম পর্য্যায়.pdf/১০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| झ९थं} ] 어 [ আষাঢ়, ১৩১৬ সাল। ਮੇਟ ਫ਼ “বেহুলার” ঐতিহাসিকতা। বঙ্গনরনারীর চির-পরিচিত। বেহুলাকে বঙ্গীয় পাঠকের নিকট নূতন আকারে উপস্থিত করিয়া শ্ৰীযুক্ত দীনেশচন্দ্ৰ সেন বাঙ্গালী মাত্রেরই ধন্যবাদাহঁ হইয়াছেন । দীনেশবাবু বেহুলা’র অনতিহ্রস্ব ভুমিকায় দুই একটি ঐতিহাসিক তত্বের অবতারণা করিয়াছেন। বঙ্গভাষায় ঐতিহাসিক দীনেশ বাবুর সঙ্কলিত সত্য অবলম্বন করিয়া, আমরা আমাদের বক্তব্য বিবৃত করিতে চেষ্টা করিব । “বেহুলা’র ভূমিকায় লিখিত হইয়াছে, (১) কাণ হরিদত্ত ৬০০ বৎসর পূর্বে, মনসার ভাসান-গান রচনা করিয়াছিলেন, সুতরাং তিনি বিদ্যাপতি চণ্ডীদাস প্রভৃতি কবিরও পূর্ববৰ্ত্তী ; (২) মনসার ভাসান-গান এক সময়ে বঙ্গীয় জন-সাধারণের এত প্রিয় ছিল যে, এতদেশের প্রত্যেক জেলার লোকেরা ভাসান-গানের নায়ক চন্দ্রধরের নিবাসভূমি স্বীয় জন্মস্থানের অদূরবত্তী কল্পনা করিয়া সুখানুভৰ করিত। এইরূপে বৰ্দ্ধমান, ধুবড়ী, বগুড়া, দাৰ্জিলিং, দিনাজপুর, মালদহ, চট্টগ্রাম, বীরভূম ও উত্তরপশ্চিমাঞ্চলের স্থলবিশেষে বেহুলা আখ্যায়িকার কোন কোন অংশ অভিনীত হইয়াছিল বলিয়া, তত্তৎস্থল-বাসীদের বিশ্বাস । As etensar Zaf Y