পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র - পঞ্চম পর্য্যায়.pdf/১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঐতিহাসিক চিত্র। প্ৰলয়াগ্নির স্মৃলিঙ্গ নির্গত হইয়া শেষে দিল্লা পৰ্য্যন্ত ব্যাপ্ত হইয়াছিল। যে পলাশী-প্ৰান্তরে প্রগমে ইংরেজের বিজয়-পতাকা উড়ান হইয়াছিল, তাহারই নিকটে বহরমপুরের শ্যামল প্ৰান্তরে সিপাহী-বিদ্বেষ-বহির প্রথম স্ফলিঙ্গ নির্গত হয়। যদিও বঙ্গের জলসিক্ত ভূমিভাগে তাহ প্ৰদীপ্ত হইতে পারে নাই। কিন্তু বিচারের শুষ্ক ভূমি স্পর্শ করিবামাত্র তাহা প্ৰজ্বলিত হইতে আরম্ভ হয়, ও ক্ৰমে ক্ৰমে সমগ্ৰ উত্তর-পশ্চিম প্রদেশে ব্যাপ্ত হইয়া পড়ে । এই প্ৰদীপ্ত অগ্নির আলোকে ভারতে অনেক গুলি চিত্ৰ উজ্জল ভাবে লোক-লোচনের সম্মুখবৰ্ত্তী হইয়াছিল। ইতিহাস সেই সেই চিত্র বক্ষে ধাবণ করিয়া সেঈ প্ৰলিয়াগ্নির কথা স্মরণ করাইয়া দিতেছে । আমরা তন্মধ্যে হইতে দুর্গটি চিত্রের ছায়া মাত্ৰ পাঠক বর্গের নিকট উপস্থাপিত করিবার ইচ্ছায় এই ক্ষুদ্র প্রবন্ধটির অবতারণা করিলাম। প্ৰায় শত বৎসর হইল, কোম্পানীর রাজত্ব আরম্ভ হইয়াছে। রাজত্বে ও বাণিজ্যে কোম্পানী দেশমধ্যে আপনাদের ক্ষমতা বদ্ধমূল করিয়া তুলিয়াছে। কোম্পানীর শাসন-কর্তৃগণ ছিদ্ৰ পাইলেই দেশীয় রাজগণের রাজ্য ও জমিদার, গণের জমিদার খাস করিয়া লইতে তৎপর হইয়াছেন । নানা প্ৰকার কঠোপ নিয়ম প্ৰচলিত করিয়া সাধারণের মনে অশান্তির বীজ উপ্ত করিতে লাগিলেন। বিশেষতঃ লর্ড ডালহৌসীর বিশ্বগ্রাসিনী নীতির বলে সমগ্ৰ ভারতবর্ষ ব্যাপিয়া যেন একটা অসন্তোয্যের স্রোত পৰাচিত হঠাতে আরম্ভ করিল। আবার গো-শূকরের চর্বি-মিশ্ৰিত টোটা কাটায় অসন্মত হইয়া সিপাহীগণও ক্ষিপ্ত হইয়া উঠিল। এই সময়ে বিহার প্রদেশে একজন অশীতিপর বৃদ্ধ ক্ষত্ৰিয়-সন্তান ইংরেজ শাসন-কত্ত্বগণের ব্যবহারে মন্মাহত হঠয়া শাণিত তরবারি নিস্কাষিত করিয়া বসিলেন। সাহাবাদ জেলায় জগদীশপুর যাহার ৫ নামে চির বিখ্যাত হইয়া আছে, আমরা সেই কুমার সিংহেরই কথ*