পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র - পঞ্চম পর্য্যায়.pdf/২৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আকবর, আবুল ফজল, বিশপ রেডিফ । ミミ○ দেবতার উচ্চাসন গ্ৰহণ করিয়াছেন, তবে তাহদের প্রতি আমাদের ভক্তি প্রা৩ি জন্মে। মানুষ তা তাদের পদচিহ্ন স্মরণ করিয়া দেবত্ব লাভ করিতে পারে । রেডিফ —আপনি জ্ঞানী, ইহা বোধ হয় জানেন যে, দার্শনিক যুক্তিতে জগৎনিয়ন্তাকে খুজিয়া পাওয়া যায় না। তিনি একমাত্র ভক্তি বিশ্বাসেই জ্ঞেয় । আকবর - যথাৰ্থ কথা, ইষ্ঠ। আমি ও স্বীকার করি । হিন্দুরা বলেন, আত্মদশন হইলেই তাহাকে দেখা যায়, কেনন। তিনিই আমি তিনিই তুমি । আর জীবমাত্রই যখন তাহার অংশ তখন পৃষ্ট, বুদ্ধ, মহম্মদকে ঈশ্বরের অবতার বলিলে কি দোম ? আবুল ফজলে ।--উত্তম কথা, তবে সকলেই অবতার, কেননা সকলেই DBBDB BDD SS DBDuD S g BBDBDDDD LEEB D BD S রেডিফ —অ'ত অশুদ্ধেয় কথা । আবুল ফজল ।-দেখিলাম, এ বিষয়ে একমাত্র হিন্দুষ্ট নিরপেক্ষ, সে কাহার ও বিশ্বাসের উপর হস্তক্ষেপ করে না । সকলের ধৰ্ম্ম তাহার ধৰ্ম্ম, সকল ধৰ্ম্মের দেবতা তাহার পূজ্য, এই খানে সকলের হৃদয়োপযোগী ধৰ্ম্মাদর্শ দৃষ্ট হয়। আর সকল শাস্ত্রের উল্লিখিত দুজ্ঞেয় পরমেশ্বরই তাঙ্গার । হিরণ্যগৰ্ভ প্রজাপতি । তবে সব ধৰ্ম্ম সত্যের সঙ্গে বহুল মিথ্য দৃষ্ট হয় ; আন্মোন্নতি ও পরহিতব্ৰতই মানুষের একমাত্র ধৰ্ম্ম, যাবতীয় ধৰ্ম্ম উহার সোপান মাত্র । ধৰ্ম্ম মনুষ্যত্বের সোপান। কিন্তু as a রেডিষ্ণ –হিন্দুর হৃদয় বড় কোমল, তাই তার ধৰ্ম্মসাহিত্যে এত সম্প্রসারণ শক্তি দৃষ্ট হয়। আৰুলফজল –সন্ত্য কথা, হিন্দু রণোম্মদ জাতি হইলে,তাহার ভাগ্যাকাশে অন্যরূপ-নক্ষত্রের উদয় হইত ।