পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র - পঞ্চম পর্য্যায়.pdf/৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহারাজ দলিপ সিংহের পরিণাম । ( Ry পঞ্জাবে মহারাজের পত্ৰ সানন্দে পঠিত হইল। ইহার প্রত্যুত্তর দানে কালবিলম্ব হইল না । একজন পাঞ্জাবী লিখিলেন,-“প্রিয়তম মহারাজ, যদিও আমি আপনার স্বদেশীয়গণের মধ্যে একজন অজ্ঞাত ব্যক্তি, তথাপি আমি আপনাকে প্ৰাণের সহিত অভ্যর্থনা না করিয়া থাকিতে পারিলাম না । আপনার ইংলণ্ড পরিত্যাগ ও স্বকীয় ধৰ্ম্ম পরিগ্রহে দৃঢ় প্ৰতিজ্ঞার বিষয় জ্ঞা ত হইয়া এরূপ আনন্দিত হইয়াছি যে, আমার আন্তরিক ভাব সম্পূর্ণরূপে ব্যক্তি করা একরূপ অসম্ভব । * * প্রিয় মহারাজ, আপনার সুবিশ্বাস্ত মঙ্গলাকাজক্ষী এবং স্বদেশীয় এক বিনত পাঞ্জাবী।” পঞ্জাববাসিগণের প্রতি মহারাজের পত্র এবং তা হাতে শিখদিগের মনোভাব দর্শনে ইংরাজ শঙ্কিত হইলেন এবং তঁাহারা দলিপকে ভারতবর্ষে আসিতে দেওয়া যুক্তিসঙ্গত মনে করিলেন না । দলিপ শিখদিগকে উত্তেজিত করিতেছেন, এই অনুমান করিয়া তিনি এডেনে পৌছিবামাত্র ইংরাজ তাহাকে বন্দী করিলেন। এইরূপ ব্যবহারে দলিপ অতিশয় বিরক্ত হইয়া ইংলেণ্ডেশ্বরীর নিকট তারযোগে ইহার এক প্ৰকাশ্য বিচারের অনুমতি • প্রার্থনা করিলেন । কিন্তু ইহাতেও হতাশ হইয়া ক্ৰোধান্ধ দলিপ প্রচার করিলেন যে “১১ বৎসর বয়সে তাহার অভিভাবক বলপূর্বক তাহার নিকট পঞ্জাব বাজেয়াপ্তের সন্ধিপত্রে স্বাক্ষর করাইয়া লওয়ায় ; তিনি উক্ত সন্ধি অগ্ৰাহা করিতেছেন।* এই অবিমুষ্যকারিতার ফল দলিপকে অচিরাৎ ভোগ করিতে হইল । অনতিৰি’লম্বে তিনি বন্দীরূপে ইংলণ্ডে আনীত হইলেন। এইরূপ অবস্থায় অধিক দিন ইংলণ্ডে থাকা দলিপের অসহ্য হইয়া

  • বরাদাকান্ত মিত্ৰ-প্ৰণীত মহারাজ দলিপ সিংহ।