পাতা:কবিকঙ্কণ-চণ্ডী (প্রথম ভাগ) - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


bo কবিকঙ্কণ-চণ্ডী মহাভারতের অন্য এক জায়গায় গণেশ্বর ও বিনায়ক নামের উল্লেখ আছে।-- এতে দেব স্ত্রায়ন্ত্রিংশৎ সৰ্ব্বভুতগণৈশ্বীয়াঃ । DD DBBBDDD KLLBDDELS অনুশাসন, ১৫০, ২৪২৫ ৷৷ বেদে প্ৰথমে ত্ৰিলোকে বা অধিষ্ঠাতা বলিয়া একই দেবতার তিন স্বরূপ কল্পনা করা হয়; পাবে একাদশ-ইন্দ্ৰিয়গ্ৰাহ বলিয়া তিন-এগার-তেত্রিশ দেবতা নির্দিষ্ট হন; পরে সেই তেত্ৰিশ তেত্রিশ-কোটি হইয়া উঠিয়াছে-এককেই বহুরূপে জানাইবার রূপক হইতে BDBBDDD BDDDB DD DBBB DTDuD BB BDBDBDD YKDD DBDBD DDDS কোনো একটি বিশেষ দেবতাকে নহে। কিন্তু মহাভাবতে যে তেত্ৰিশ জন গণেশ্বর বিনায়কোব নাম আছে, তঁাবা কেউ বৈদিক দেবতা নন, তঁাবা গ্ৰামণী অর্থাৎ গ্রামেব দেবতা, “যোগভূতগণাস্তথা” । এইসব গ্ৰাম্য অপদেবতা প্রায়ই ক্ষেত্রপাল হয়। বাহপুবাণ স্বীকাব কবিয়া বলিয়াছেন-গৌৰী গণেশ শিব কাৰ্ত্তিকোষ আদিত্য ও মাতৃগণ সকলেই ক্ষেত্ৰপাল-তাঃ ক্ষেত্রদেবতা: সৰ্ব্বা; (১৭৩৪)। সেইজন্য গণেশেব মুখ শস্যধ্বংসকাৰী শ্রেষ্ঠ পশু হাতীব মতন, এবং তঁাব বাহন কৃষিব শত্র মুষিক। লক্ষ্মী, যিনি কৃষিসম্পদ, তাব বাহন মুষিকভক্ষক পেচক’। স্কন্দপুবাণে আছে-গণেশ হস্তে অস্কুশ মুষল লাঙ্গল পাব শু। ধারণ কবিয়া থাকেন; ঐ সমস্তই কৃষি ও পশুপালনেব অস্ত্ৰ ; সুতবাং এই সমস্ত উপকবণ গণেশকে কৃষিব দেবতা বলিয়াই সুচিত করিতেছে। শিব-দুৰ্গাও আদিতে সমাজেব নিম্নস্তবেব লোকদেবই দেবতা ছিলেন, তাদেব নাম ও রূপ হইতেই কতকটা পবিচয় পাওয়া যায়-শিব গিরিশ, পশুপতি, জটাধাবী, kDDBS SBDBuDStO KDD SS BBD0 KBDBB DBDD BD DBDD DDDD LDBD ও শবরীর রূপ ধারণ করিয়াছিলেন, বহু পুরাণেব বিবিধ উপাখ্যানে দেখা যায়। দুৰ্গোৎসবেব নাম শবরোৎসব। সেই উৎসবে অশ্লীল বাক্য ও কৰ্ম্ম দ্বাবা দেবীব প্ৰীতি অর্জন কবিতে শাস্ত্রের উপদেশ আছে (কালিকা-পুবাণ)। শিব-দুর্গাঁও ক্ষেত্ৰপাল, এইজন্য কৃষিসম্পদের চিহ্নস্বরূপ নবপত্রিকা দুর্গাপুজাব প্ৰধান অঙ্গ। বাঙালীর হাতে শিবদুর্গা একেবারে কৃষক গৃহস্থ সাজিয়াছেন; তঁরা কখনো বা কাপাস বুনিয়া তাতিয়া মতন কাপড় বুনেন, কখনো বা শাখা বেচিবার জন্য ফেবিওয়ালা হন (শিবায়ন)। BD tiB ED KKiBDD BKBD DD KBBS ggB BDgg DD uuD বেগ লাভ করিয়া সমাজের উপরের স্তরের লোকদের বাধ্য করিয়া নিজেদের দেবতা বলিয়া স্বীকার করাইতেছিলেন এবং তাদের উচ্চ কল্পনায় ক্রমশ সংস্কৃত হইয়া মহাদেবেয়