পাতা:কবিকঙ্কণ-চণ্ডী (প্রথম ভাগ) - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গণেশের দেবত্বের ক্রমবিকাশের ইতিহাস SS শিব স্বীয় পত্নীকে তদীয় হাস্যসমুৎপন্ন কুমাবের শ্ৰী দেখিয়া মুগ্ধ হইতে দেখিয়া শাপ দিয়া তাকে কুৎসিত করেন। অন্য পুরাণে এই কবন্ধ হওয়াব ভিন্ন ভিন্ন কারণ দেওয়া হইয়াছে। পাৰ্ব্বতীর অত্যন্ত সাধ যে একটি ছেলে হয়। একদিন তার অঙ্গীবাগের সময় তঁাব দাসীরা যে গাত্ৰমল তোলে তাহা দিয়া পাৰ্ব্বতী একটি পুতুল গড়িতে আরম্ভ কবেন। তখনো পুতুলের মাথা গড়া হয় নাই, শিব সেখানে আসিয়া পড়িলেন ও সেই পুতুল দেখিয়া বলিলেন- “তোমার বড় পুত্ৰ পাইবার সাধ, ঐ পুতুল তোমার পুত্ৰ হোক।” দেববাক্য ব্যর্থ হইবাব নয়। যেমন বলা অমনি ফলা-কবন্ধ পুতুল জীবন্ত হইয়া উঠিল। তখন অগত্যা তাব ধড়ে হাতীব মাথা জুড়িয়া ८७प्रां श्ल। বামন-পুবাণে পাৰ্ব্বতীব গাত্ৰমল হইতেই একেবাবে গজাননেব জন্ম, কবন্ধ দেহে গজমুণ্ড যোজনাব ব্যাপাব নাই ( ৫৪ অধ্যায় )। বৃহদ্ধৰ্ম্মপুরাণ বলেন-পাৰ্ব্বতী পুত্ৰলাভেব জন্য ব্যস্ত হইলে মহেশ্বর পাৰ্ব্বতীর রক্তবর্ণ বস্ত্ৰাঞ্চল আকর্ষণ করিয়া তাহাই পবিহােসচ্ছলে পাৰ্বতীব কোলে দিয়া বলিলেন-এই তোমাব ছেলে। অমনি দেববাক্য ফলিযা গেল ; বস্ত্ৰাঞ্চলই জীবন্ত শিশু হইয়া পড়িল । কিন্তু সেই শিশুব মাথা উত্তাব দিকে ছিল বলিয়া খসিয়া গেল এবং তখন তাব স্থানে গজমুণ্ড জোড়া হইল। রক্তবস্ত্ৰ হইতে দেহ উৎপন্ন BBD S S yKK S DBBDBDD SS S BDS 0LkBB S DDD0SYSYDS DBDSBDDBDDSDBBBS সিন্দুর-শোভাকরং--দন্তাঘাতে বিদাবিত শত্রুশৰীবেব বক্তে অনুলিপ্ত বলিয়া গণেশ রক্তবর্ণ। ববাহ, মৎস্য, অগ্নি, শিব, ভবিষ্য, বামন ও গরুড় পুবাণে গণেশেব প্ৰসঙ্গ ও উপাখ্যান আছে, কিন্তু আশ্চৰ্য্য এই তাদেব মধ্যে ঐক্যেব চেয়ে পার্থক্য অধিক । দাক্ষিণাত্যে প্রচলিত সুপ্ৰভেদাগমতন্ত্রে গজবক্ত, গণেশেবা জন্মেব বিবরণ পুবাণ হইতে স্বতন্ত্র। শিব-পাৰ্ব্বতী হিমালয়-সানুতে ভ্ৰমণ কবিতে গিয়া গজমিথুন দেখিয়া নিজেরাও গাজরূপ ধারণ কবিয়া বিহাবি কবেন ও তাব। ফলে গজবক্ত-পুত্রের জন্ম হয় ( ৪৩ পটল ) । মার্কণ্ডেয়-পুরাণে আছে যে কাৰ্ত্তিক জ্যেষ্ঠ, গণেশ কনিষ্ঠ। কাস্তিক গণেশ দুজনেই বিবাহের জন্য ব্যস্ত হইয়া আগে আমি বিবাহ করিব বলিয়া বাবার কাছে আবদার ধরেন। শিব বলিলেন, যে পৃথিবীর সর্বতীর্থ প্ৰদক্ষিণ করিয়া আগে ফিরিতে পরিবে তারই আগে বিবাহ হইবে। কাত্ত্বিক দ্রুতগামী ময়ূরবাহনে