পাতা:কবিকঙ্কণ-চণ্ডী (প্রথম ভাগ) - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/২৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পুৱীনিৰ্ম্মাণ 总之宁 দেবদেবী নাম বদল করিয়া নিজেদের পূজা ও প্রতিষ্ঠা প্ৰচুলিত রাখিতেছিলেন। এইরূপে বৌদ্ধদেবী বাগুলি হইয়াছিলেন চণ্ডী, হারিতি হইয়াছিলেন শীতলা, এবং তরিত বা তাবিত হইয়াছিলেন মনসা। এইজন্য এই সময়ে এই তিন দেবীর মহিমা ঘোষণার জন্য বঙ্গে বহু মঙ্গলকাব্য রচিত হয়। এবং এই কারণেই চণ্ডীর প্রথম মন্দির নিৰ্ম্মিত হইতেছে কলিঙ্গনগরে। (কলিঙ্গ-সংস্থান সম্বন্ধে ২১৭ পৃষ্ঠা দ্রষ্টব্য )। চণ্ডী যে প্রচ্ছন্ন বৌদ্ধ দেবী বাগুলি তাহা আমরা পরে ক্রমশ পরিচয় পাইব । হনুমান-প্ৰাচীন বহু বাংলা মঙ্গল কাব্যে হনুমানের সংস্রব দেখা যায়। এর কারণ বোধহয়—(১) রামায়ণের প্রভাব, (২) দেশে বানর-পূজা প্রচলিত থাকা, (৩) হনুমান ধৰ্ম্মের বাহন ছিলেন, ( ৪ ) বুদ্ধদেব এক জন্মে মৰ্কটমুৰ্ত্তি ধারণ করিয়া প্ৰজ্ঞাপারমিতা সম্পাদনা করিয়াছিলেন ( জাতক ), (৫) বিশ্বকৰ্ম্ম একবার ঋতধ্বজ ঋষির শাপে বানর হইয়াছিলেন চিত্রাঙ্গদায়াঃ পিতরাং মাং তুষ্টারিং তপোধন। অভিজানীহি ভবতঃ শাপাদ বানরতাং গতিম ||- বামন-পুরাণ, ৩৫,১০২ ৷ (৬) শিবশক্তির অনুচর নন্দী ভৃঙ্গীও হনুমান ছিলেন নন্দিনঞ্চ হনুমন্তং পশ্চিমদারি পূজয়েই । -কালিকাপুরাণ, ৬৩ অধ্যায়। ধৰ্ম্মের বাহনের নাম উলুক। এই উলুকের মূৰ্ত্তি গড়া হয় কতকটা গরুড় ও কতকটা হনুমানের মতন। ফরাসডাঙ্গার খোলসিনি গ্রামে ধৰ্ম্মমন্দিরের দ্বারদেশে বানরাকৃতি উলুক দণ্ডায়মান আছে। ধৰ্ম্মমঙ্গলে ধৰ্ম্মের বাহন হনুমান। বাহন-রূপী উলুক লাউসেনকে মল্লবিদ্যা শিখাইয়ছিল। মাণিকদত্তের চণ্ডীতে বিসাইরূপী হনুমান চণ্ডীর দোহারা নিৰ্ম্মাণ করে । ধৰ্ম্মশক্তি বা শুলি চণ্ডীতে পরিণত হইলে তার মন্দির গঠনের ভার ধৰ্ম্মের বাহনের উপরই ন্যস্ত হইল। ংসনদ-মেদিনীপুরের উত্তরাঞ্চলে প্রবাহিত কঁসাই নদী। এর প্রাচীন সংস্কৃত নাম কপিশা। রঘুবংশকাব্যে রঘুর দিগ বিজয়-প্রসঙ্গে এই নদীর উল্লেখ পাওয়া যায়— স তীত্ব কপিশাং সৈন্যৈর বদ্ধ-দ্বিারদ-সেতুভি: | উৎকলাদৰ্শিতপথ: কলিঙ্গাভিমুখে যযৌ ॥-৪৩৮ কপিশা নাম অপভ্রংশে হয় কঁসাই। কঁসাই নামের মূল ভুলিয়া উহাকে সংস্কৃত করিবার চেষ্টায় পরবর্তী কালে নাম হয় কংসাবতী, কংস, কৌশিকী। তুঃআনিয়া ত বিশ্বম্ভর भ? ?ाह्रै७ि मङ्गश, কলিঙ্গে করিবে তোমা পূজা ৷