পাতা:কবিকঙ্কণ-চণ্ডী (প্রথম ভাগ) - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/২৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S8b. কবিকঙ্কণ-চণ্ডী প্রাচীন কন্নড়-সাহিত্য আলোচনা করিলে জানিতে পারা যায় যে, লিঙ্গপূজা দ্রাবিড়দিগের একটি সুপ্ৰাচীন রীতি। আমরা যাহাদিগকে আৰ্য্য অভিধান দিয়া থাকি তাহাদিগের ভারতগমনেব পূৰ্ব্বে দক্ষিণ-ভারতে লিঙ্গোপাসকগণ বাস করিত। ইহাদের বর্ণ কৃষ্ণ । কন্নড় ভাষায় তাহদের প্রাচীন ভাষার, উপকরণ এখনও বিলুপ্ত হয় নাই। এই জাতি যখন লিঙ্গপূজা করিত, তখন ভারতের কোথাও লিঙ্গপূজার প্রচলন ছিল বলিয়া প্ৰমাণ পাওয়া যায় না। আর খৃষ্ট-পূর্ব প্রথম শতকের পূর্বে কোথাও লিঙ্গ-প্রতীকের নিদর্শন পাওয়া যায় নাই। খৃষ্টপূর্ব প্ৰথম শতকের কাছাকাছি দুইটি প্ৰাচীনতম লিঙ্গ পাওয়া গিয়াছে। একটি ভিটা হইতে প্ৰাপ্ত—এক্ষণে তাহা লক্ষ্মেী মিউজিয়মে সংরক্ষিত। গোপীনাথ রাও লিখিয়াছেন যে, অপরটি উত্তর আরকিটের অন্তৰ্ব্বৰ্ত্তী গুড়িমল্লমে সম্প্রতি আবিস্কৃত হইয়াছে। পূৰ্ব্বে দ্রাবিড়েরা তাহদের বীরগণকে সমাধিস্থ করিবার সময় তাহাদের সমাধির উপর লিঙ্গাকৃতি ‘বীরকিল’ বসাইয়া দিত। এই বীরকলস্থাপন-রীতিই সম্ভবতঃ লিঙ্গপূজায় পৰ্য্যবসিত হইয়াছে। পরযুগে এই দ্রাবিড়গণের ন্যায় বৌদ্ধেরও স্তপের পূজার প্রবাৰ্ত্তন করিয়াছিল। লিঙ্গপূজা বিশেষভাবে প্রচলিত হইলে পর প্রাচীন পল্লব পাণ্ড্য ও চোড়দিগেব মধ্যে লিঙ্গ-প্রতীকোপাসনারা প্ৰবৰ্ত্তন দেখিতে পাওয়া যায়। দ্রাবিড়দেশে খৃষ্টজন্মের বহুপূৰ্ব্বে প্ৰথমে জৈন ও তার পর বৌদ্ধধৰ্ম্ম প্রচারিত হইয়াছিল। এ সময়ও দ্রাবিড়েরা লিঙ্গ পূজা করিয়া আসিয়াছে। খৃষ্টীয় প্রথম শতকে উত্তরভাবত হইতে শৈবধৰ্ম্ম প্রথম দ্রাবিড়-ভূমিতে প্রচারিত হয়। লকুলীশ ইহা প্ৰবৰ্ত্তন করেন। দ্রাবিড়দের অনেকে শৈবধৰ্ম্মে দীক্ষিত হয় । দক্ষিণ-ভারত বৈদেশিক আক্রমণ হইতে অপেক্ষাকৃত নিরাপদ থাকিয়া শৈবধৰ্ম্মের পুষ্টিসাধনে সমর্থ হইয়াছিল (Indian Antiquary, XXX, 17) six is কিছুদিন বৌদ্ধধৰ্ম্মের প্রচারে শৈবধৰ্ম্ম কিঞ্চিৎ বাধা প্ৰাপ্ত হইয়াছিল ২৩ খৃষ্টাব্দ হইতে ২১৮ খৃষ্টাব্দের মধ্যে বৌদ্ধধৰ্ম্ম তেলুগু প্রদেশে বিশেষরূপ প্রভাব বিস্তার করিয়াছিল। তার পর শৈবধৰ্ম্মের স্রোত পুনরায় চলিতে থাকে। লিঙ্গপূজা ও শিবপুজায় মেশামেশি হইয়া গেল। লিঙ্গোপাসকদিগের সঙ্গে শৈবদিগের আর কোন বিরোধ ब्रईिल नां । দক্ষিণ-ভারত হইতে দলে দলে শৈব সন্ন্যাসী আসিয়া বঙ্গদেশে ও অন্যত্র শৈবধৰ্ম্ম প্রচার করিবার সুযোগ পাইয়াছিল। ইহারই ফলে খৃষ্টীয় সপ্তম শতকের প্রারম্ভে বৌদ্ধ-প্ৰপীড়ক বঙ্গরাজ শশাঙ্ক শৈবধৰ্ম্মে দীক্ষিত হন। এই সময় মহারাজ হর্ষও শৈবধৰ্ম্ম গ্ৰহণ করিয়াছিলেন ।