পাতা:কবিকঙ্কণ-চণ্ডী (প্রথম ভাগ) - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৪৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবিকঙ্কণ-চণ্ডী في মহাদেব-বন্দন (৩-৮ পৃষ্ঠা) মহাদেবের দেবত্বের ক্রমবিকাশের ইতিহাস দেবতা মানুষেবা কল্পনাব সৃষ্টি। সুতরাং মানুষের ইতিহাসেব সঙ্গে দেবতাদেব ইতিহাস জড়িত। কালে কালে ও দেশে দেশে মানব-কল্পনা পুঞ্জিত হইয়া প্রবালদ্বীপেব ন্যায় এক এক দেবতাকে গড়িয়া তোলে। যিনি দেবতাদিগেব মধ্যে মহাদেব, যিনি রুদ্র অথচ শিব, যিনি গৃহী অথচ সন্ন্যাসী, যিনি ত্ৰিলোকপতি অথচ ত্যাগী দবিন্দ্র, সেই মহেশ্বব দেবতা বহু কালেব বহু দেশেব বহু সমােজস্তবে বা দেবকল্পনাব সমষ্টি। ভাবতবর্ষেব সর্বপ্ৰাচীন সভ্যতাব ইতিহাস বৈদিক সাহিত্যে দেখিতে পাওয়া যায়। BD DBDDB 0BDO SOBBu D DBDDBDDS DD BDD SG DDBBBBBD DBuuBD ছিল--ঈজিপ্ট বা মিশ্রদেশ, বাবিলন বা বাবকক্ষ, ক্যালডিযা, সীবিন্যা, গ্রীস, বোম, ইত্যাদি । এই-সব দেশেব চিন্তাধাবাব পবশম্পব যোগ অতি প্ৰাচীন কালেই যে ঘটিয়াছিল তাব বহু পবিচায়েব মধ্যে শিব-শক্তি পুজাব ইতিহাস একটি প্রধান প্রমাণ । সমস্ত প্ৰাচীন জনপদেব সভ্যতা অনেক বিষয়ে পবাস্স্পবেবি নিকট ঋণী । বৈদিক ঋষিবা ছিলেন বিশ্বদেবাঃ অর্থাৎ বিশ্বদেববাদী বা সব্বেশ্বববাদী , তাবা জানিতেন জগতেব যত কিছু ঘটনা সমস্তই ঐশী প্ৰকাশ । একই বড় ও বহুই একtg DBE kSkS DDD DDD BDBDB S DBuB KKEEB DBD DB BDL uuhS0S DBSS0S থাকে। আদিতে বেদে একই পবমেশ্ববোৰ প্ৰকাশকে ত্ৰিমূৰ্ত্তিতে কল্পনা ক বা হয়অগ্নি, বায়ু বা ইন্দ্ৰ বা বরুণ, এবং স্পৰ্য্য বা সবিতা বা বিষ্ণু । এষ্ট বিদেব বা ত্ৰিমূর্দি একই মহাশক্তিব বিভিন্ন প্ৰকাশেৰ নাম স্তব মাত্র ছিলেন ( বেদ প্ৰবেশিকা, ১১৭ পৃষ্ঠা ; উপাসক-সম্প্রদায়, অন্য ঐক্ৰমণিকা ) । মানুষেবা জ্ঞানেব দ্বােব একাদশ বলিয়া মানুষেব নিকট দেবশক্তিব প্ৰকাশেৰ ৰূপ হইল। ১১ । এই ১১-কে ত্ৰিলোকে বা অধিষ্ঠাতা কল্পনা কবিয়া হইল ৩৩ । বেদ আবাব দেবতাব সংখ্যা ৩৩৩৯ বলিয়া একেব বহুরূপেব কল্পনা কবিল ( মৎপ্রণীত ‘বেদবাণী” দ্রষ্টব্য )। তাহা হইতে পৌবাণিক DBDD BBE DDD DDD SBSS DBD DDDBB giB BBDDB BDD BBD মোহ আছে-এই বাশিটিকে মানুষ বহিস্তারিত মন্ত্রাত্মক বলিয়া মনে করে । তাই হিন্দুব ত্ৰিমূৰ্ত্তি, বৌদ্ধদেব ত্ৰিবত্ন, ক্ৰিশ্চানদেব ত্ৰিনিটি দেবস্বরূপের প্রকাশক ; তব KDt DBBS BDBDDS miBtS BDBS DDBBSBD BDS DDS DDS BDDDBS ত্ৰিদশ, ত্ৰিকুল, ত্ৰিগণ, ত্র্যম্বক, ত্ৰিদণ্ডী, ত্র্যহস্পৰ্শ, ত্রিদোষ, ত্রিধাবা, ত্রিপিষ্টপ, ত্ৰিপুট,