পাতা:কবিকঙ্কণ-চণ্ডী (প্রথম ভাগ) - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কবিকঙ্কণ-চণ্ডী کی سی এই অঞ্চলে প্ৰতিষ্ঠিত। গুপ্তরাজাদের পরে পালবংশের অভু্যদয়। মাৎস্তন্যায় অনুসারে প্ৰজাপুঞ্জ প্রবল হইয়া নিজেরা নির্বাচন করিয়া গোপালদেবকে ৭৮৫ খৃষ্টাব্দের সমকালে রাজা করে। তখন সাধারণতন্ত্র বঙ্গে প্ৰবল হইয়া উঠিয়াছিল বলিয়া সাধারণের ধৰ্ম্মবিশ্বাস ও দেবতা ব্ৰাহ্মণ্যধৰ্ম্ম ও দেবতাদের অভিভূত ও পরাভূত করিয়াছিল। ৭ম শতাব্দীতে শবরগণ বঙ্গ ও উৎকলের কিয়দংশ অধিকার করে । এই সময়ে কাশ্মীর ও * বঙ্গ মিত্র রাজ্য ছিল। রাজতরঙ্গিণী হইতে জানিতে পারা যায় গৌড়ে সিংহের উৎপাত হইলে কাশ্মীর রাজ জয়াপীড় সিংহ বধ করিয়া গৌড়রাজকুমারী কল্যাণাদেবীকে বিবাহ করেন। এই সময়ে উভয় তান্ত্রিক রাজ্যের মিত্রতায় ঐ ধৰ্ম্ম আরো বদ্ধমূল হইবার অবকাশ পাইয়াছিল। বাঙালী তান্ত্রিক প্রচারকের গুজরাটে ও দক্ষিণাত্যে গিয়া তান্ত্ৰিক ধৰ্ম্ম প্রচার ও তান্ত্রিক দেবমূৰ্ত্তি কালিকা ও চামুণ্ড প্রতিষ্ঠা করেন। এলোরা গুহায় ( ৭৬০ খৃঃ অঃ) কালীমূৰ্ত্তি প্রতিষ্ঠিত আছে দেখা যায়। ভবভূতির মালতী-মাধব, সুবন্ধু’র বাসবদত্ত (৬ষ্ঠ শতাব্দী), নাগানন্দ নাটক প্ৰভৃতিতে দাক্ষিণাত্যে তান্ত্রিক প্রভাবের পরিচয় পাওয়া যায়। পশ্চিমে জলন্ধর ও হিংলাজ, পূর্বে কামরূপ কামাখ্যা এবং দক্ষিণে পুনা হইতে ভুবনেশ্বর পর্য্যন্ত রেখা টানিলে যে ভূভাগ সীমাবদ্ধ হয় তার মধ্যে তান্ত্রিক দেবমূৰ্ত্তি প্ৰতিষ্ঠা ও আবাধন বিশেষভাবে প্রচলিত হইয়াছিল । একাদশ শতাব্দীতে বিক্রমপুর বিহারের প্রসিদ্ধ তান্ত্রিক আচাৰ্য দীপঙ্ক’ব শ্ৰীজ্ঞান তিব্বতে তান্ত্রিক ধৰ্ম্ম প্রচার করিতে গমন করেন, এবং তঁর প্রভাবে বঙ্গে গৌড়ে মগধে তান্ত্রিক মত বহুল প্ৰচারিত হয়। এইরূপে যে বঙ্গদেশ এক সময়ে অপবিত্র স্থান বলিয়া বিবেচিত হইত, গুপ্তরাজদিগের সময়েই তাহা তীর্থস্থান-মধ্যে পরিগণিত হয়; স্কন্দপুরাণে পৌণ্ডবৰ্দ্ধন একটি তীর্থ বলিয়া স্বীকৃত হইয়াছে। ৬৪৭ সালে হর্ষবৰ্দ্ধনের মৃত্যুর পর তিব্বতী ও নেপালীরা মিথিলা বঙ্গ আক্রমণ ও জয় করে । তারা নিজের প্রভাব এই দেশে বদ্ধমূল কবিয়া রাখিয়া যায়। তৎপরে সেনারাজগণের সময়। কারো কারো মতে গৌড়রাজ জয়ন্ত ও আদিশূর অভিন্ন ( ৮ম শতাব্দী)। আদিশূর বৈদিক ধৰ্ম্মের পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য কান্তকুজ হইতে বেদজ্ঞ ব্ৰাহ্মণ আনয়ন করেন, ইহা সুপরি জ্ঞাত। কিন্তু তঁর তিরোধানের সঙ্গেসঙ্গেই বঙ্গে বৈদিক ধৰ্ম্ম পুনঃপ্রতিষ্ঠার দুঃস্বপ্ন লুপ্ত হইতে থাকে। মহারাজ বল্লালসেন সিংহগিরি নামক বৌদ্ধ আচাৰ্য্যের উপদেশে বীরাচার তান্ত্রিক হন, পরে হিন্দু তান্ত্রিক দীক্ষা গ্ৰহণ করেন ( ১২শ শতাব্দী)। আবার মহারাজ লক্ষ্মণ সেন পিতামহ বিজয়সেনের ন্যায় বৈদিক আচারের পক্ষপাতী হইয়া তান্ত্রিক প্ৰধান গৌড়বঙ্গসমাজে তান্ত্রিক আচারের মধ্যে প্রচ্ছন্নভাবে বৈদিক আচার প্রবর্তনের জন্য র্তার প্রধান মন্ত্রী হলায়ূধকে BD DBDBuBD DBB BB BDBBDB BBD D0 L0LDBD DBDDS DDD DDB uBBD DDB প্রতিষ্ঠা করার ও বৈদিক-তান্ত্রিক আচার সমন্বয়ের চেষ্টা সফল হয় নাই।