পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ফতেপুরের রহিম সেখের বড় ছেলে করিম দেখের সাঙ্কত প্রতিবেশী এনাতুল্লা পরামাণিকের পুত্ৰ বসিরাদির ছেলেবেলা হইতে বড় প্রণয় । করিম ও বসিরাদি একসঙ্গে খেলা করিত, একসঙ্গে একই মাঠে গরু চরাইত, দুইজনে গোপনে পরামর্শ করিয়া প্রতিবেশীর বাগান হইতে ফল চুরি করিত , দ্বিপ্রহরে মাঠের মধ্যে গরু, ছাড়িয়া দিয়া দুইজনে বটগাছের ছায়ায় গামোছা পাতিয়া শয়ন করিান্ত । এবং মধ্যে মধ্যে উভয়ে গল মিলাইয়া রৌদ্রদীপ্ত প্ৰান্তর প্রতিধ্বনিত করিয়া মেঠোসুরে গান ধরিত “আমার পরাণ কঁদে বাড়ী যাই যাই কৈয়্যারে”---- সেই বৈশাখের দ্বিপ্রহরে বটবৃক্ষতলে শয়ান রাখাল-বালকদ্বয়ের পরাণ গৃহগমনের জন্য সত্য সত্যই কঁাদিত কি না বলিতে পারি না ; কিন্তু সেই সময়ে দূর-দেশগামী কোন পথিক যদি প্রান্তরের পথে যাইত, তাহা হইলে, ঐ গান শুনিয়া তাহার হৃদয়ে বাড়ীর কথা জাগিয়া উঠিত এবং নিশ্চয়ই গৃহে ফিরিবার জন্য তাহার পরাণ ব্যাকুল হইয়া ऐठेिऊ । করিম ও বসিরদিকে যে কোন দিন পাঠশালায় যাইতে হয় নাই, এ কথা না বলিলেও চলে। মা সরস্বতীর সহিত তাহাদেব