পাতা:করিম সেখ - জলধর সেন.pdf/৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করিম সেখ فسه ভাই, তুই যে আজ আমাদের বাড়ী যাসনি” বসির কোন উত্তর করিল না, তাহার তখন কথা বলিবার শক্তি ছিল না ; তাহার বুক যেন ফাটিয়া যাইতেছিল। অধর তাহার অবস্থা দেখিয়া স্তব্ধ হইয়া দাড়াইল । সে কিছুই * বুঝিতে না পারিয়া বসিরকে বুকের মধ্যে চাপিয়া ধরিল। একটু পরেই বসির বলিল “ভাই, ঘাটে নৌকা আছে ?” अक्षद्ध दक्लिव्न *ख्धांछि ।” “তবে চল, দুইজনে নৌকায় গিয়া বসি” এই বলিয়া অধরের হাত ধরিয়া বসির নদীর তীরে গেল। তাহার পর দুইজনে নীচে নামিয়া নৌকায় গিয়া বসিল। নৌকায় বসিয়া অধর বলিল “বাঁসির, তোর আজ কি হয়েছে ?” ৰসির বলিল “ভাই, আজ সব কথা মনে পড়ে গেছে।” অধর ব্যগ্ৰভাবে বলিল “সব কথা, মনে পড়েছে ? বেশ, বেশ, বেশ কথা। আমায় সব বল। বলবি ত ?” বসির ধীরে ধীরে বলিল “ভাই অধর, তুই আর জন্মে আমার কে যেন ছিলি। তুই আমার ভাই ; না না, ভাইয়ের চেয়েও বড়। তোকে সব কথা বলব ব’লেই ত নৌকায় এসে বসলাম” এই ৰলিয়া বসির চুপ করিল। অধর বলিল “দেখ ভাই, সব কথা না হয় না বললি, তোর পরিচয় পেলেই হয়, তোর কে কোথায় আছে তাই জানতে পারলেই হয়। আর কোন কথা শুনবার দরকার নেই” – বসির বলিল “না, না, তা হবে না। আজ আমার সব কথা মনে পড়েছে ; তোকে সব কথাই বলছি। আমার মত দুঃখী মানুষ আর নেই ভাই ।”