পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/১০০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৯৫৬ কলিকাতা সেকালের ও একালের । ,

  • $隊

মুরশীদকুলী খাঁর আমলে, তিনি রাজসাহীর রাজার সহিত যুদ্ধক্ষেত্রে সেনাপতির কার্য্য করিয়া নবাবকে যথেষ্ট সন্তুষ্ট করেন। কিন্তু জমাদারীর রাজস্ব বাকী ফেলায়, ভবিষ্যতে তিনি নবাব কর্তৃক কারারুদ্ধ হন। রঘুরামের . যথেষ্ট দানশীলতা ছিল । তিনি পুত্র কৃষ্ণচন্দ্রের উপর বিরক্ত থাকায়, বৈমাত্রেয় ভ্রাতা রামগোপালের হস্তে রাজ্যভার প্রদান করিয়া দেহত্যাগ করেন । কিন্তু কৃষ্ণচন্দ্র, দিল্লীর সম্রাটের নিকট হইতে অনুমতি পত্র আনাইয়া, পিতৃপরিত্যক্ত সম্পত্তির অধিকারী হন r মহারাজা কৃষ্ণচন্দ্র অগ্নিহোত্র ও বাজপেয় নামক মহাযজ্ঞ সম্পাদন করেন। এই উপলক্ষে, তাহার বিশলক্ষ টাকা ব্যয় হয়। এই যজ্ঞসভায়, সৰ্ব্বদেশীয় পণ্ডিতমণ্ডলী সমেত হইয় তাহাকে "অগ্নিহোত্রী-বাজপেয়ী প্রমান মহারাজ রাজেন্দ্র কৃষ্ণচন্দ্র রায়” উপাধি প্রদান করেন। মহারাজা কৃষ্ণচন্দ্র, একদা মৃগয়া ব্যাপদেশে বর্তমান শিবনিবাস নামক স্থানে উপস্থিত হন এবং এই স্থানের সৌন্দৰ্য্যমুগ্ধ হইয়া, তথায় একট প্রাসাদ নিৰ্ম্মাণ করেন। মহারাজ কৃষ্ণচন্দ্র অত্যন্ত বিদ্যোৎসাহী ছিলেন এবং নদীয়া, কুমারহট্ট, শাস্তিপুর ও ভাটপাড়া এই চারিট পণ্ডিতসমাজের পৃষ্ঠপোষক ছিলেন। তিনি বহু সহস্র বিধা নিষ্কর জর্মী, ব্রাহ্মণ পণ্ডিতগণের মধ্যে বিতরণ করিয়াছিলেন । র্তাহার সভায় ও তঁহার পৃষ্ঠপোষকত্বে ষে সমস্ত পণ্ডিত অবস্থান করিতেন, তন্মধ্যে নিম্নলিখিত গুলি সুবিখ্যাত। স্ত্রীকান্ত, কমলাকান্ত, বলরাম, শঙ্কর, দেবল, মধুসুদন, রামপ্রসাদ সেন, বিখ্যাত কবি ভূমেশ্বর বিদ্যালঙ্কার, নৈয়ায়িক শরণ তর্কালঙ্কার ও জ্যোতিৰ্ব্বিৎ অনুকূল বাচস্পতি। নৈয়ায়িক কালিদাস সিদ্ধান্ত তাহার সভাপণ্ডিতগণের মধ্যে সৰ্ব্বপ্রধান ছিলেন, হুগলীর অন্তর্গত সুগন্ধ্যের গোবিন্দরাম রায় রাজার সর্বশ্রেষ্ঠ চিকিৎসক ছিলেন। চরকে তাহার অসীম বুৎপত্তি ছিল । তান্ত্রিক কৃষ্ণানন্দ সাৰ্ব্বভৌম আগমবাগীশ প্তাহার সমসাময়িক ছিলেন । তিনি তন্ত্রসার রচয়িতা । তিনিই সৰ্ব্বপ্রথমে কালীপূজা, এবং কালীপূজার রাত্রিতে পথ ও বাট প্রভৃতি আলোকিত করিবার প্রথা প্রচলিত করেন। এই প্রথা এক্ষণে সমগ্র ভারতে বিস্তৃত হইয়া পড়িয়ছে। তন্ত্রশস্তুে তাহার অসাধারণ পাণ্ডিত্যের জন্য তিনি আগমবাগীশ নামে অভিহিত হইতেন। কৃষ্ণচন্দ্ৰই, বঙ্গদেশে জগন্ধাত্রী পূজার প্রচলন করেন। তাহীর সভার আর একটা উজ্জ্বল রত্ন-জন্নদামঙ্গল রচয়িত কৰিভারতচন্দ্র সঙ্গীত ও স্থপতিবিদ্যার উন্নতি সাধনে মহারাজা কৃঞ্চঞ্জের যথেষ্ট জহুরীগ ছিল। স্বারাণসীর জ্ঞানবাপীর মধ্যে মুঘৃহৎ অবতরণিক।