পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/১০২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- কলিকাত সেকালের ও একালের । , čo عبوا من झिननTশোভাবাজার রাজবংশের পুরাতন বাটতে নবকৃষ্ণ নিৰ্ম্মিত পূজার দালান এখনও বর্তমান রহিয়াছে। - মীরজাফরের ব্যবহারে বিরক্ত হইয়া, ইংরাজগণ যখন তাহার জামাত। মীরকাসিমকে মসনদ প্রদান করিতে সঙ্কল্প করেন, তখন নবকৃষ্ণের মধ্যস্থতাতেই তাহার সহিত বন্দোবস্ত ও সন্ধি প্রভৃতি স্থিরীকৃত হয়। মীরকাসিম শ্বশুরের পক্ষে কলিকাতার বাকী রাজস্ব মিটাইতে আসিয়াছিলেম, কাজেই যোগাযোগ ঠিক ঘটিয়া গিয়াছিল । ইহার পর, মীরজাফর আবার যখন বাঙ্গালার মসনদে বসেন তখনও নবকৃষ্ণ ইংরাজের ফারসী দপ্তরে কার্য্য করিতেছিলেন এবং টাক। কড়ির বাকীর হিসাব করিতেন । মীরজাফরের নিকট পাওনা ২• লক্ষ টাকার মধ্যে র্তাহার দেওয়ান নন্দকুমার এক দফায় ২ লক্ষ টাকা পাঠাইয়াছিলেন। তাহার চিঠিতে লিখিত ছিল “কোন তোড়ায় কিরূপ টাকা আছে, তাহার এক ফর্দ মুন্সী মৰকৃষ্ণকে পাঠান হইল ।” কারণ প্রত্যেক নবাবের আমলে টাকার ওজন বিভিন্ন হইত এজন্য বাট স্থির করাও নিতান্ত সহজ কাজ ছিল না। ১৭৬৪ খ্ৰীষ্টাব্দে ক্লাইভ যখন এদেশে পুনরায় গভর্ণর হইয়া আইসেন তখন তিনি বুঝিলেন, নবকৃষ্ণ দেশমধ্যে একজন গণনীয় ব্যক্তি হইয়৷ উঠিয়াছেন। তিনি ইংরাজ ও নবাব উভয় পক্ষেই সম্মানিত ও সুপরিচিত । নবাব-সরকারে নবকৃষ্ণের যথেষ্ট প্রতিপত্তি ছিল । তিনি অনেক সময় মুরশীদাবাদের প্রয়োজনীয় গুপ্ত সংবাদ, কলিকাতার ইংরাজদের পাঠাইরা দিতেন । 孵 - মীরকাসিমের সহিত যুদ্ধের সময় মহারাজ নবকৃষ্ণ, মেজর আডাম্সের বেনিয়ান হইয়া, তাহার সঙ্গে যান এবং মেজর সাহেব রণক্ষেত্রে আহত হইলে, বহু কৌশলে উহাকে শক্ৰহস্ত হইতে রক্ষা করেন। এই সঞ্জয় মহারাজ নন্দকুমার, বিহার প্রবাসী দিল্লীর সম্রাটের সহিত ষড়যন্ত্র করিতেছেন এই সন্দেহ করিয়া, জেনারেল কার্ণক নন্দকুমারকে ৰণী:করিয়া কলিকাতায় পাঠাইতে সংকল্প করেন এবং গবর্ণর ভবিষ্যতৃে ভ্যাপিটার্টের লিখিত বিবরণ পাঠ করিয়া যখন ক্লাইভ মহারাজকে পদচ্যুত করিয়া তাহাকে চট্টগ্রামে নির্বাসিত করিতে সঙ্কল্প করেন, তখন নবকৃষ্ণের অনুরোধে মহারাজ নন্দকুমার সে যাত্রা বিপদোৰ্ত্তীর্ণ হইয়াছিলেন। o - ইহার পর—অযোধ্যার নবাবের সহিত দিল্লীর সম্রাটের বিবাদের মীমাংসা ও কোম্পানীর বাঙ্গাল, বিহার ও উড়িষ্যার দেওয়ানী-গ্ৰাপ্তির