পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/১০৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


} e eళ్ళీ কলিকাতা সেকালের ও একালের । রাষমণি রাজচন্দ্রের সহিত পরিণীত হন। রাজচন্দ্র রাসমণির পিতৃ-গৃহে প্রাপ্ত শিক্ষার যথেষ্ট উৎকর্ষ বিধান করেন । র্ত্যহাদের তেত্রিশ বৎসরের দাম্পত্যজীবন, পরম সুখে অতিবাহিত হইয়াছিল। ১৮৩১ খ্ৰীষ্টাবো রাসমণির ' পিতৃ-বিরোগ ও তৃতীয় কন্যা করুণাময়ীর মৃত্যু হয়। এই ঘটনার পঁাচ । বৎসর পরে রাজচন্দ্র, পরলোক গমন করিলে, রাসমণি পঞ্চান্ন হাজার টাকা ব্যয়ে তাহার শ্রাদ্ধক্রিয়া সম্পন্ন করিয়া, পতি-পরিত্যক্ত বিপুল সম্পত্তির তত্ত্বাবধান করিতে লাগিলেন। , রাসমণি তীক্ষ্ণ বিষয়বুদ্ধিশালিনী ছিলেন। ভাগীরথীতে মৎস্য ধরিবার জন্য, ধীবরগণের উপর করস্থাপনের চেষ্টা এই প্রতিভাময়ী রমণীর অব্যর্থ কৌশলে নিষ্ফল হইয়াছিল। পতিবিয়োগের পর বৎসর, রাসমণি জানবাজার বাটীতে মহাসমারোহে রাসোৎসব করেন । ১৮৩৮ খ্ৰীষ্টাব্দে রথস্বাত্রার জন্ত এক রৌপ্যরথ নিৰ্ম্মাণ করাইয়াছিলেন । এ রথ এখনও বর্তমান । এই জন্স দুইটী উৎসব ব্যতীত রাসমণি শরৎকালে আনন্দময়ী শারদীয়া প্রতিমার বাৎসরিক অর্চনার অনুষ্ঠান করিতেন । লোকহিতকর কার্য্যে র্তাহার স্বভাবতঃই একটা উৎসাহ ছিল। সোনাই, বেলেঘাট ও ভবানীপুরের বাজার, কালীঘাটে ঘাট ও মুম্যুনিবাস, হালিসহরে জাহ্নবী তীরে ঘাট, খুবর্ণরেখার অপর তীর চইতে কতকদুর পর্য্যন্ত ঐক্ষেত্রের রাস্ত প্রভৃতিতে তাহার পরিচয় পাওয়া যায়। গঙ্গাসাগর, ত্রিবেণী, নবদ্বীপ, অগ্রদ্বীপ ও পুরীতে তীর্থযাত্রা করিয়া, রাসমণি ধৰ্ম্মকামনায় প্রচুর অর্থ ব্যয় করেন । পুরীধামে তিনি তিন খানি বৃহৎ ও কয়েকখানি ক্ষুদ্র সুবর্ণমুকুট, জগন্নাথদেবকে প্রদান করেন ও সর্বসাধারণকে এক দিন মহাপ্রসাদ বিতরণ করিয়াছিলেন। এই তেজস্বিনী ও দয়াবতী রমণী, দয়া ও দানমুগ্ধ জনসাধারণ কর্তৃক, “রাণী রাসমণি” নামে অভিহিত হইতেন। দেবালয় নিৰ্ম্মাণের সঙ্কল্প করিয়া, রাসমণি বারাণসীতে একখণ্ড ভূমি ক্রয় করিয়াছিলেন। সে সময়ে বারাণসী প্রভৃতি তীর্থস্থানে যাইতে হইলে ধনীর পক্ষে জলপথই প্রশস্ত ছিল। বিশ্বেশ্বর দর্শনাভিলাষিণী রাণী রাসমণি, প্রয়োজনীয় খাদ্য, রক্ষক, চিকিৎসক, অনুচর এবং আত্মীয়বর্গ সমভিব্যাহারে বারাণসী যাত্রার উদ্বেপ্তে, পঁচিশখানি বজরা সজ্জিত করাইলেন। কিন্তু যাত্রার পূৰ্ব্বে র্তাহার'এ সঙ্কল্প সহসা পরিবর্তিত হইল। তখন বঙ্গে ঘোর ছুর্ভিক্ষ ও মহামারী। রাসমণি গঙ্গাস্বান করিতে যাইয়া ৰজরায় যে সমস্ত খাদ্যদ্রব্য ছিল, তাহ দরিদ্রসাৎ করিলেন। বারাণসীর পরিবর্তে, তিনি নিম্ন ৰঙ্গে ভাগীরথী