পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/২৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সপ্তম অধ্যায় さぬ> অধীনস্থ কৰ্ম্মচারীদের, এই কয়ট দ্রব্যের ব্যবসায়ের উন্নতি ও প্রচলন সম্বন্ধে বিশেষরূপ দৃষ্টি রাখিতে অনুরোধ করেন এবং তাহাদিগকে সময়োপযোগী নানাবিধ উপদেশ দিয়া বঙ্গদেশে প্রেরণ করেন । এই উপদেশানুবর্তী হইয়া, ব্রিজম্যান ও ষ্টিফেন্স নামক দুইজন ফ্যাক্টর ১৬৫৫ খৃঃ অবো হুগলীতে বাণিজ্যকঠী স্থাপনের জন্য যাত্রা করেন। গেব্রিয়েল বেটন সাহেবও উন্মুক্তনেত্রে ইংরাজ বণিকদিগের কার্য্য-কলাপ লক্ষ্য করিতে ছিলেন। কারণ, তিনি ইতিপূৰ্ব্বেই তিনহাজার মুদ্র নজরানা দিয়া, সম্রাটপূদ্র সাহমুজার নিকট হইতে, বঙ্গদেশের সর্বত্রেই বিনাশুন্ধে ইংরাজদের বাণিজোর অনুমতি-পত্র সংগ্ৰহ করিয়াছিলেন । এই অনুমতি পত্রের বলে, ইংরাজগণ বাঙ্গলার সর্বত্রই অবাধ-বাণিজ্যের অধিকার প্রাপ্ত হন। হুগলী ও বালেশ্বরে তাহারা যথেষ্ট পরিমাণে সোরা ক্রয় করিতে পরিবেন, এরূপ আদেশও ইহাতে থাকে । . . ইঙ্গর পর, সেকালের কাগজপত্র হইতে যাহা কিছু জানা যায়, তাহ বড় আশাপ্রদ নহে। ইংরাজ স্থাপিত হুগলীর প্রথম বাণিজ্যাগার, নানা কারণে অধঃপতনের দিকে অগ্রসর হইতেছিল । সকল দিকেই ঘোর বিশৃঙ্খলা ও গোলযোগ । বেগতিক দেখিয়া,মান্দ্রাজের কৰ্ত্তারা বাঙ্গালা হইতে দপ্তর তুলিবার চেষ্টা করিতেছিলেন । কিন্তু বিধাতার লিপিবশে,এই সময়ে ইংলণ্ডে ঘোরতর রাজনৈতিক পরিবর্তন সাধিত হইল । ইংলণ্ড তখন সাধারণ-তন্ত্র-বিধায়ক ক্রমওয়েলের শাসনাধীন। প্রজাতন্ত্র শাসনের পূর্ণ প্রাদুর্ভাব। কোম্পানীর বিলাতের কৰ্ত্তারা, সুযোগ বুঝিয়া ক্রমওয়েলের নিকট র্ত্যহাদের বাণিজ্য সম্বন্ধীয় চাটারটা নূতন করিয়া লইলেন । * ১৬৫৭ খ্ৰী: অব্দে এই সমস্ত বিশৃঙ্খলার প্রতিকারের উপায় হইল। ইংলওঁীয় রাজ-স্বত্বাধীনে যে ইষ্ট ইণ্ডিয়া কোম্পানী, ইতিপূৰ্ব্বে সৰ্ব্বপ্রথমে গঠিত হইয়াছিল, তাহারা ব্যতীত, আরও অনেকে, নূতন কোম্পানী গড়িয়া ভাগ্য-পরক্ষার্থে, ভারতের বিভিন্ন বাণিজ্যকেন্দ্রে প্রবেশ করিয়াছিলেন । ক্রমওয়েলের আমলে, বিলাতের অধ্যক্ষেরা তাহার নিকট নূতন “চাটর্ণর” প্রাপ্ত হন।

  • হুগলীর বাণিজ্য-কুঠির অবস্থা বস্তুতই এই সময়ে অতি শোচনীয় হইয়া উঠিয়াছিল। সাম্ৰাজ কেন্সিল, বিলাতে যে পত্র লেখেন, তাহার একাংশ এই—“বাঙ্গলার ফ্যাক্টরের গরী হইয়াছে। বাদসাহী ছাড় ও নিশান তাহদের হস্তগত থাকায়স্তাহারা নিজেরাই নোমে ব্যবসা চালাইতেছে । ইহাতে ইষ্ট ইণ্ডিয়া কোম্পানীর যথেষ্ট অর্থ ক্ষতি হইতেছে। পৰিয়েল বেটন মরিয়া গিয়াছেন। তাহার বিধবা পত্নী একজন ইংরাজকে বিবাহ করিয়াছেন।

ংি নবদম্পতি এক্ষণে একযোগে, কোম্পানীর অধ্যক্ষগণের নিকট বেস্টনের প্রাপা আদায়ের *"] १क मॉदि छै*हिऊ कब्रिह्मांएकून "