পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/২৬৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২২৮ কলিকাতা সেকালের ও একালের জীবনযাত্রা নিৰ্বাহ করিতেন। যখন তাহারা ফ্যাক্টার হইতে দূরতর স্থানে যাইতেন, তখন মুসলমানদিগের মত, মাটীতে কার্পেট বা সতরঞ্চ বিছাইয়া খানা থাইতেন। * অনেকে এদেশের ঢিলা পোষাক-পরিচ্ছদ পরিতে ভাল বাসিতেন । এদেশীয় স্ত্রীলোকদিগকে পত্নীরূপে গ্রহণ করিতেন। সমাজ-সংগঠন করিয়া একস্থানে বাস করিতে গেলে, সেই সমাজের উপযুক্ত আমোদ প্রমোদও চাই। কেবল অক্লান্ত কৰ্ম্মময় জীবন লইয়া থাকিলে, মানুষ বাচিতে পারে না। এখন যেমন, বল, থিয়েটার, পিকনিক, ইভনিং-পাট ইত্যাদি নানারূপ আমোদ ব্যবস্থা হইয়াছে, তখন সেরূপ ছিল না। আড়াই শত বৎসর পূৰ্ব্বে, সম্রাট ঔরঙ্গজেবের আমলে, বঙ্গদেশীয় ইংরাগণের আমোদ-প্রমোদের আয়োজন, অতি সামান্তভাবেই হইত। পৰ্ব্বদিনে কিস্ক ছুটীর দিনে, তাহার নিকটস্থ জঙ্গলে শিকার করিতে যাইতেন। কখনও বা কোন এদেশীয় পদস্থ আমীর-ওমরাহের সঙ্গে জুটিয়া, শিকারের বিমল আনন্দ উপভোগ করিতেন। ফ্যাক্টরী হইতে বেশী দূরে যাইবার অধিকার তাহীদের ছিল না । হুগলীর ইংরাজ-ফ্যাক্টরীর দুই মাইল উত্তরে কোম্পানীর একখানি সখের-বাগান ছিল । কোম্পানীর কৰ্ম্মচারীরা, সাধরণতঃ এই বাগানেই আমোদ-প্রমোদ করিতে যাইতেন । বাগানের সীম অতিক্রম করিয়া, দূরতর স্থানে যাইবার ক্ষমতা তাঙ্গদের ছিল না। বাগানে গিয়া পুষ্করিণীতে অবগাহন স্নান, বায়ুসেবন, খেদি গল্প, আর মদির ও মোরব্ব-ভোজন ইহাই অrড়াই শত বৎসর পূর্বে এদেশীয় ইংরাজের আমোদ-অtহলাদের চূড়ান্ত ব্যবস্ত ছিল । সামাজিকত হিসাবে, প্রতিবাসী ডচ দিগের সহিত, ইংরাজদের কখন কখন নিমন্ত্রণের আদানপ্রদান চলিত। কখনও বা ডচেরা তাহীদের নিমন্ত্রণ করিতেন, আবার কখনও ইংরাজের উচু দিগকে প্রীতিভোজ দানে প্রফুল্লত করিতেন। ফ্যাক্টারীর চীফ" বা বড়কর্তা এবং তাহার সহকারী, কেবলমাত্র “পালক” ব্যবহার করিতে পারিতেন। পাদরীসাহেবদের কেবলমাত্র ছাতা ব্যবহার করিবার- ক্ষমতা, ছিল । পথ চলিবার সময় বেতনভোগী ছত্রধারীরা, বড় বড় ছাত দিয়া তাহদের মাথা রক্ষা করিত। ইহাদিগকে “ছাতী-বরদার” বলিত। কিন্তু এই ছত্র-ছা!

  • In those ..days of greatest isolation the tendency to gravitate towards the local ways of living and acting was very strong. They took their meals when away from the Factory lying on carpets; they wore the Indian dress, they married Indian wives. (Ovington's voyages 49 Wilson.).