পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/২৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দশম অধ্যায় । &S2う চাওঁক, নবাবের নিকট যে সকল দাবি করিয়াছিলেন, তন্মধ্যে নিম্নলিখিত গুলিই প্রধান। (১) নবাব তাহার অধিকৃত ভূভাগের মধ্যে একটা সুবিধাকর স্থানে ইংরাজদিগকে দুর্গ-নিৰ্মাণ করিতে সম্মতি দিবেন। (২) gারদের বাণিজ্য-শুদ্ধ দিতে হইবে না ও র্তাহারা নিজেদের টাকশালে চুক তৈয়ারি করিবেন। (৩) মালদহের ফ্যাক্টার লুঠ করিয়া, নবাব ইরজদের যে টাকাকড়ি লইয়াছেন, তাহ প্রত্যৰ্পণ করিবেন ও নেয়ারী-গৃহ পুনঃ নিৰ্ম্মাণ করিয়া দিবেন। (৪) ইংরাজের বাণিজ্যস্থত্রে নবাসের প্রজাদের নিকট যে সমস্ত টাকা পান, তাহা তাহারা আদায় করিয়া মইতে পারিবেন। ভরমল—এই সমস্ত ব্যাপারের মীমাংসার জন্ত, নবাব সায়েস্তার্থী কর্তৃক 'সুতানুটীতে প্রেরিত হইলেন। বল বাহুল্য, ভরমল ইংরাজদিগের প্রার্থনামত কয়েকট স্বত্বে—-নবাবপক্ষ হইতে, ইংরাজদের সহিত সন্ধিপত্র প্রস্তুত করিলেন। প্রথামত, এই সন্ধিপত্র নবাব সায়েস্তার্থীর নিকট স্বাক্ষরার্থে ঢাকায় প্রেরিত হইল। চার্ণক বিশেষ ভাবে অনুরোধ করিলেন—ইহা যেন সম্রাটেরও স্বাক্ষর সংযুক্ত হইয়া আসে। ১১ই জানুয়ারী—এই সন্ধিপত্র নবাবের নিকট ঢাকায় প্রেরিত হয়। ২৮শে তারিখে, নবাবের নিকট হইতে সংবাদ আসে—যে তিনি সেই সন্ধিপত্র মঞ্জুর করিয়া, বাদসাহের সহী-মোহরের জন্ত যথাস্থানে পাঠাইয়া দিয়াছেন। কিন্তু চীর্ণক, আগাগোড়াই একটা মহাভ্রমে পড়িয়াছিলেন। এদেশে এতদিন বাস করিয়াও, তিনি নবাব সায়েস্তাখার মত জবরদস্ত, কূটবুদ্ধি, রাজকৰ্ম্মচারীকে চিনিতে পারেন নাই। শীঘ্রই তাহার জ্ঞাননেত্র উল্মীলিত হইল। প্রকৃতপক্ষে নবাব হুগলীর ব্যাপারে তিলমাত্র ভীত হন নাই । তিনি কেবল উপযুক্ত অবসর লাভের জন্য, এইরূপ চতুরতা অবলম্বন করিয়াছিলেন। ক্ষেত্ৰস্থার মাসের তৃতীয় সপ্তাহে, তিনি ভরমল-প্রণোদিত উল্লিখিত সন্ধিপত্র, গর্শকের নিকট অস্বাক্ষরিত অবস্থায় ফিরাইয়া দিলেন। বঙ্গের সর্বস্থানের "াসনকৰ্ত্তাদের সেনা সমবেত করিতে আদেশ দিলেন। র্তাহাদের উপর ইকুম হইল, এই সমবেত-সেনা সহায়তায়, তাহারা বঙ্গদেশ হইতে ইংরাজ দিকে জন্মের মত উচ্ছেদ করিবেন। ভরমল ইতিপূৰ্ব্বেই—স্বস্থানে চলিয়া য়িছিলেন 豪

  • গণক ঘটত ব্যাপারে যেখানে আমরা নবাব" শব্দ ব্যবহার কবি-পাঠক সেটিকে দ্য সরেস্তার্থ।—বলিয়াই বেন বুঝেন।