পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৩৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বাদশ অধ্যায় । \5 לפ( বিলাতের কৰ্ত্তারা, ভাবী সন্ধিপত্রের একটা খসড়া পৰ্য্যন্ত কবিয়া দেন । তাছাতে পূৰ্ব্ববৰ্ত্তী সম্রাটগণের প্রদত্ত ফরমান গুলি যাহাতে বলবৎ হয়, গুহারা বিনা বাধায় বঙ্গদেশের সর্বত্র বাণিজ্য করিতে পারেন, গুছাদের নিজের টাকশালে মুদ্র অঙ্কিত করিতে পারেম, এ সব প্রস্তাবও ছিল । ع; এদিকে জব চার্ণক ১৬৮৬ খৃঃ অব্দে কাশিমবাজার হইতে-পলায়ন করিয়৷ হুগলীতে আসিলেন । হুগলীতে আসিবার পরই, তিনি সংবাদ পাষ্টলেন, নিকলসন ছয়শত সেনা সমেত ভারতে আসিতেছেন । চার্ণক এতদিন মুখ বুঝিয় অত্যাচার সহ করিয়া আসিতেছিলেন । তাছার প্রভূ ডিরেক্টারেরা–তাহার পূর্ব প্রস্তাব গ্রাহ করিয়া, মোগলের সহিত যুদ্ধ করিবার জন্য সেনা-প্রেরণ করিতেছেন—এ সংবাদে ভাঙ্গার প্রাণে অনেকটা সাহস আসিল । ঐ বৎসরে, চারিশত নূতন ইংরাজ-সৈন্য হুগলীতে পৌছিল । নবাব সায়েস্ত থাৎ শুনিলেন ইংরাজের চরিশত সেনা আনিয়া BBBB BB BBBBB S BSBBB BBBB BB BBBB BB BBBBS এইজন্স তিনি তিন সত্ৰ পদাতিক ও তিনশত অশ্বারোহী মোগল-সেন। হুগলীতে পাঠান। তখন আবদুল গণি—গুগলীর ফৌজদার । লোকটা বড়ই অব্যবস্থিত চিত্ত । আবদুল গণি—প্রক রাস্তরে গায়ে পড়িয়া ইংরাজদের সহিত ঝগড়। বাধাইলেন । সে বিবাদের কারণ, অমরা পূৰ্বেই বলিয়াছি । হুগলীর বাজারে প্রয়োজনীয় খাদ্যাদি কিনিতে গিয়াই, মোগল সৈন্সের সহিত ইংরাজ-সৈন্সের সংঘর্ষ উপস্থিত হয় । জব চার্ণক, নিকলসন ও লেস লীকে যুদ্ধার্থে প্রেরণ করেন । এই যুদ্ধে ইংরাজপক্ষই জয়ী হন। ফৌজদার, হুগলী ছাড়িয়া পলায়ন করেন । ইংরাজপক্ষে একজন লোক হত হয়—মোগলপক্ষে ষাট জন লোক মরে । ফৌজদার ভয় পাইয়া, চাণকের নিকট সন্ধির প্রস্তাব করিলেন । চাণক তখন কোম্পানীর জাহাজ সমুঙ্গে সোরা বোঝাই করিতেছিলেন । তিনি বুঝিলেন - হুগলীতে মালামাল রাখা নিরাপদ নহে। সোর । গুলি অনেক টাকার মাল। এ গুলি মাস্ত্রজে জাহাজ ভূরিয়া পাঠাইতে পারলে –সকল দিকে মঙ্গল । এজন্স তাহার সময়ের বড়ই প্রয়োজন । *াজেই তিনি সন্ধির-প্রস্তাবে কোনরূপ অমত করিলেন না ।