পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৪০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


938 কলিকাতা সেকালের ও একালের । লিটলটন, পূৰ্ব্বে পুরাতন ইংরাজ কোম্পানীর ফ্যাক্টররূপে ১৬৭২ མི་་་་་་་་་་་་་ এদেশে আসিয়াছিলেন। বিশ্বাসঘাতকতার জন্ত, তিনি ১৬৮২ সালে পুরাতন কোম্পানীর অধ্যক্ষগণের আদেশে পদচ্যুত হন। এই লিটলটন নবপদগ্ন লাভে, নূতন কোম্পানীর কৰ্ম্মচারীরূপে, এই সময়ে বালেশ্বর বনারে উপস্থিত হইলেন । বালেশ্বর হইতে তিনি পুরাতন কোম্পানীর এজেন্ট বেয়াড় সাহেবকে ভয় ও মৈত্রী সম্বলিত একখানি পত্র, মুতালুটিতে প্রেরণ করেন। বেয়ার্ড এ পত্র পাইয়াও তিলমাত্র বিচলিত হইলেন না। তিনিও তদনুরূপ উত্তর দিয়া পাঠাইলেন । লিটলটন হুগলীতে আসিলেন। দুই বৎসরকাল ধরিয়া, তিনি সকল বিষয়ই পুরাতন কোম্পানীর-প্রতিযোগিতা করিতে লাগিলেন, এবং প্রতি কাজেই নিরাশ হইলেন। হুগলীতে র্তাহার অবস্থা অতি শোচনীয় হইয়া দাড়াইয়ছিল । তাহার অধীনস্থগণই তাহাকে অগ্রাহ করিতে লাগিলেন। তাহার মন্ত্রণা-সভার দুইজন সদস্য—বাঙ্গালার জরে ভুগিয়া দেহত্যাগ করিলেন। নূতন কোম্পানীর সম্পত্তি রক্ষার জন্ত, তিনি যে সমস্ত প্রহরী-সৈন্য সংগ্ৰহ করিয়াছিলেন—তাহাদের অনেকে দল ছাড়িয়! চলিয়া গেল। কতক বা মৃত্যু মুখে পতিত হইল। অসংখ্য মূদ্র উৎকোচদানে, তিনি মোগল রাজ-কৰ্ম্মচারীদের নিকট, বাণিজ্যের ছাড় পাইলেন বটে, কিন্তু এ ছাড় অতি অল্পদিনের জন্য। এই ছাড়ের মেয়াদী সময় অতীত হইয়া গেলে, আবার প্রচুর মূদ্রা নজরানা দিয়া, তাহাকে নূতন ছাড় লইতে হইল। লিটলটন—হুগলীতে থাকিয়া এত প্রতিযোগিতা করিয়াও, পুরাতন কোম্পানীর কোন অনিষ্ট করিতে পারিলেন না। পরিশেষে দুই বৎসর পরে, উপায়ান্তর বিহীন, হইয়া নূতন কোম্পানী, পুরাতনের সহিত মিশিয়া গেল । উভয়পক্ষের এই বিবাদের ফলে, ইংরাজ-বাণিজ্য অনেকটা হীনশক্তি হইয়া পড়িল । লিটলটন যে সময়ে নূতন কোম্পানীর অধ্যক্ষরূপে হুগলীতে আসেন, সেই সময়ে জন বেয়ার্ড, স্বতালুটি বা কলিকাতার কুঠার অধ্যক্ষ ছিলেন। বেয়ার্ড ১৬৮১ খৃঃ অব্দে এদেশে প্রথম অসেন। জব চাণকের আমলে মোগলের সহিত ইংরাজের যে সংঘর্ষ উপস্থিত হয়, সে সময়ে বেয়ার্ডকেও অনেক কষ্ট সহ করিতে হইয়াছিল। কলিকাতার প্রাণ-প্রতিষ্ঠার পর, তিনি কৌন্সিলের দ্বিতীয় সদস্য পদে নিযুক্ত হন। ১৬৯৯ খ্ৰীষ্টাকে আবার ইংলঙে চলিয়া যান। বেয়ার্ড তৎপরে কলিকাতা এজেন্সির প্রধান বা "চিফ" প7ে * উন্নীত হন । s