পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৪০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


©ჯyb• কলিকাতা সেকালের ও একালের । পারিতেন না । বাদসাহের প্রচারিত "স্থর-উল-আক্রম" বা_আয়শাসন পঞ্জানুসারে উভয়কেই কাৰ্য্য নিৰ্বাহ করিতে হইত। বঙ্গদেশে শস্যের অভাব কোন কালেই ছিল না। স্বর্ণপ্রস্থ-বঙ্গের প্রত্যেক বিঘাই প্রচুর শস্যোৎপাদনে সক্ষম শস্ত হইতেই প্রজার জায়। প্রজার আয়ের এক নির্দিষ্ট অংশই রাজার রাজস্ব । বেবন্দোবস্তের গুণে, অপব্যয়ের প্রভাবে, বাঙ্গলার রাজস্ব ক্রমশঃ কমিয়া আসিতেছিল। মোগল-বাদসাহের স্থানীয় কৰ্ম্মচারীরা, নিজেদের উদর পূরণেই বেশী মনোযোগী ছিলেন । তাহার উপর-বিদ্রোহ, বিপ্লব প্রভৃতি কারণে, মধ্যে মধ্যে বঙ্গদেশের রাজস্ব-বিভাগে মহা বিশৃঙ্খলতা উপস্থিত হইত। নব নিযুক্ত দেওয়ান মুরশীদকুলী খ1, বাঙ্গলায় আসিয়। রাজস্ব বিভাগের সংস্কার কার্য্যে মনোযোগী হইলেন । সরকারী কাগজ-পত্র অনুসন্ধানে, তিনি স্পষ্টই দেখিলেন--বাঙ্গলা প্রদেশ হইতে এক কোটা টাকা রাজস্বরূপে সংগৃহীত হইতে পারে। এইজন্ত তিনি শীঘ্রই রাজস্ব-বিভাগের আমূল সংস্কার করিলেন। উপযুক্ত কৰ্ম্মচারিগণের হস্তে রাজস্ব-বিভাগের কাৰ্য্যসমূহ হস্ত হইল। বাঙ্গলার মধ্যে, যে সমস্ত জায়গীরদারগণ এতদিন জায়গীরের স্বত্ব উপভোগ করিতেছিলেন, প্রজার রক্তশোষণ করিয়া স্থূলকায় হইতেছিলেন, তাহাদের অনেকেরই জায়গীর, উড়িষ্যায় স্থানান্তরিত হইল । কেবল নিজামতের, দেওঁয়ানের এবং বাদসাহী প্রধান সেনাপতি প্রভৃতির জায়গীর বঙ্গদেশেই রহিল। ইহার ফল এই হইল, প্রজাগণ জায়গীরদারদের অযথা অত্যাচার হইতে মুক্তিলাভ করিল এবং জমীর উন্নতি হওয়ায় তাহার উৰ্ব্বরতা-শক্তিবৃদ্ধির সহিত রাজস্ব-বৃদ্ধি পাইল । মুরশীদকুলী থা—সমস্ত বন্দোবস্ত শেষ করিয়া, বঙ্গীয় রাজস্বের বিশদ বিবরণ, বাদসাহের দরবারে পেশ করিলেন । তিনি বাদসাহের স্বনির্বাচিত কৰ্ম্মচারী । ঔরঙ্গজেব তখন দক্ষিণাত্যের যুদ্ধকার্য্যে ব্যস্ত—টাকার তাহার বড়ই প্রয়োজন। কাজেই বাঙ্গলার এই নূতন দেওয়ানের কার্য্যকুশলতার তিনি যথেষ্ট গ্রীত হইলেন । * - ب এই ব্যাপার লইয়া বাঙ্গলার সুবেদার—আজিমওখানের সহিত, নবাব মুরশীদকুলীয় মনোমালিন্ত ঘটে। তিনি বাদসাহেছ ভয়ে, তাহার প্রিয় দেওয়ানকে কিছু বলিতে পারিতেন না বটে—কিন্তু মনে মনে সৰ্ব্বদাই র্তাহার অনিষ্ট-কামনা পোষণ করিতেন। এইজন্ত, এক সময়ে তিনি নবাবকে বিনাশ করিবার জন্য এক ভীষণ চক্রাস্তের স্বষ্টি করিলেন। -