পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৫৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


○○○ কলিকাতা সেকালের ও একালের চাসা কৈবৰ্ত্তজিত জীএ:পলাইঞা । বিছন বলদের পিঠে লাঙ্গল লইয়া ॥ সেক সৈয়দ মোগল পাঠান জত গ্রামে ছিল। বরগির নাম সুইন সব পলাইল ॥ গর্ভবতি নারী যত না পারে চলিতে । দারুণ বেদন পেয়ে প্রসবিছে পথে। সিকদায় পাটআরি জত গ্রামে ছিল । বরগীর নাম সুইন সব পলাইল । দস বিস লোক য়াইয়া পথে দাড়াইলা । তা সতীরে সোধাএ বরগি কোথাএ দেখিলা ॥ তারা সব বলে মোরা চক্ষে দেখি নাই। লোকের পলান দেইখা আমোরা পলাই ॥ কাঙ্গল গরীব জত জীএ পলাইয়া । কেথা ধোকড়ি কত মাথাএ করিয়া ॥ বুড়াৰুড়ি জীএ জত হাতে লইয়া নড়ি। চাঞি ধাতুক পালা এ কত ছাগলের গলায় দড়ি ॥ ছোট বড় গ্রামে জত লোক ছিল । বরগির ভএ সব পলাইল ॥ চাইর দিকে লোক পলাঞ ঠাঞি ঠাঞি । ছৰ্ত্তিস বর্ণের লোক পলাএ তার অস্ত নাঞি ॥ এইমত সব লোক পলাইয়া জাইতে । আচম্বিত বরগি ঘেরিল আইস সাথে ॥ মাঠে ঘেরিয়া বরগী দেয় তবে সাড়া । সোনা রুপা লুটে নেএ আর সব ছাড়া। কান্ধ হাত কাটে কার নাক কৰ্ণন । একি চোটে কারূ বধএ পরাণ ॥ তাল ২ স্ত্রীলোক জত ধইরা লইয়া জাএ। আঙ্গুষ্ঠে দড়ি বাধি দেয় তার গলাএ। এক জনে ছাড়ে তারে অণর জন্য ধরে । রমনের ভরে ভ্রাহি শব্দ করে ॥