পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৬০৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


©Ꮔ$ কলিকাতা সেকালের ও একালের । পাঠক উল্লিখিত তালিকা হইতে দেখিতে পাইবেন, নবাব সিরাজউদৌল কর্তৃক কলিকাতা লুণ্ঠনের জন্ত অনেক বাঙ্গালী অধিবাসী কোম্পনীর নিকট, তাহদের নষ্ট-সম্পত্তির ক্ষতিপূরণের জন্য দাবী করেন। কোম্পানী ইহাদের দাবী কতদূর সঙ্গত ও সত্য তাহ মীমাংসার ভার তৎকালীন কয়েকজন গণনীয় বাঙ্গালীর উপর দেন। ইহারাই “নেটিভ কমিশনার” বা মীমাংসাকারী হইয়াছিলেন । এই মীমাংসাকারীদের মধ্যে কলিকাতার ব্ল্যাক-জমীদার গোবিন্দরাম মিত্র, শোভারাম বসাক, রতু সরকার, নীলমণি মিত্র, রামসন্তোষ প্রভৃতি কয়েকজন সেকালের নামজাদ বাঙ্গালী ছিলেন। গোবিন্দরাম মিত্র কুমারটুলীর অধিবাসী। নবাব যখন কলিকাতা আক্রমণ করেন, তখন তিনি কলিকাতার আবাসবাটী ত্যাগ করেন নাই । নিজের সিপাহিদ্বারা আত্মরক্ষার চেষ্টা করিয়াছিলেন । শোভারাম বসাক সম্ভবতঃ কলুটোলা অঞ্চলে থাকিতেন। আজও র্তাহার নামে একটী রাস্তা ঐ অঞ্চলে আছে। রতু সরকার, নীলমণি মিত্র ও শোভারাম বসাক, ইষ্ট ইণ্ডিয়া কোম্পানীর সহিত ব্যবসা-সম্বন্ধে লিপ্ত ছিলেন। রতু সরকার-শোভারামের প্রতিবেশী। কলুটোলার দিল্লীপটীতে আজও তাহার নামে একটী গলি বর্তমান । নীলমণি মিত্র সম্ভবতঃ দরজীপাড়ায় থাকিতেন । নীলমণি মিত্রের ষ্ট্রীট বলিয়া একটা রাস্তা আজও তাহার নাম ঘোষণা করিতেছে। উল্লিখিত তালিকা হইতে প্রমাণ হয়, যে সকল ব্যক্তি নবাব কর্তৃক সম্পত্তিনাশের ক্ষতিপূরণ দাবী করিয়াছিলেন–র্তাহীদের অধিকাংশই উক্ত মিত্ৰজ সরকার ও বসাক মহাশয়দের অমৃগৃহীত। প্রার্থীগণ যত টাকার দাবী করিয়াছিলেন, অবশ্য তাহার সমস্তটা পান নাই। প্রথম তালিকায় গোবিন্দরাম প্রমুখ ব্যক্তিগণ র্তাহীদের নিজের জন্ত বার লক্ষ, কুড়িহাজার চারিশত উনত্রিশ টাকা দাবী করেন। দ্বিতীয় তালিকাতেও দাবীর পরিমাণ তিয়াত্তর হাজার চারিশত তিপ্লান্ন টাকা - কোম্পানী-বাহাদুর গোবিন্দরামের দাৰিটা কিছু অসঙ্গত বলিয়া মনে করেন। কারণ র্তাহারা বলেন, নবাব কর্তৃক কলিকাত লুণ্ঠনের সময়, কোম্পানীর সিপাহীরাই গোবিন্দরামের ধনসম্পত্তি রক্ষা করিয়াছিল। যাহা হউক—এই ক্ষতিপূরণের টাকা অনেকেই পাইয়াছিলেন, কিন্তু তাহদের মূল দাবী হইতে অনেক টাকা বাদ গিয়াছিল। - n পলাশীযুদ্ধের পর লর্ড ক্লাইভ, মীরজাফরকে বাঙ্গলার-মসনদে বসাইলেন