পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


లి: কলিকাতা সেকালের s একালের । কিন্তু প্রতাপের অতি দুর্ভাগ্য, যে তাহার পিতা, তাহার প্রত্যেক কাৰ্য্যেই পিতৃত্রোহিতার আভাস পাইতে লাগিলেন। যাহাতে এই উদ্ধত পুত্রের জন্য, তাহাদের দুই ভ্রাতার মধ্যে বিরোধ উপস্থিত না হয়, সংসারে কোন অশান্তি না আসে, এই জন্য বিক্রমাদিত্য প্রতাপকে দূরতর স্থানে প্রেরণ করিতে মনস্থ করিলেন। একজন কৰ্ম্মচারী, আগ্রার রাজদরবারে যশোর রাজসংসারের প্রতিনিধি রূপে থাকিতেন। বাঙ্গালার সকল করদাতা ভূস্বামীকে, তৎকালে বাদসাহ দরবারে, এইরূপ একজন প্রতিনিধি বা উকীল রাখিতে হইত। বিক্রমাদিত্য একদিন বসন্তরায়কে নিভৃতে ডাকিয়া আনিয়া বলিলেন—“ভাই ! প্রতাপকে আমি আগ্রার দরবারে রাথিতে ইচ্ছা করি । ইহাতে আমার সকল উদ্দেশুই সিদ্ধ হইবে। দূরদেশে অবস্থান নিবন্ধন, আত্মীয়দিগের সহিত তাহার দূরতর সম্বন্ধ ঘটিলে, সে তাহাদের প্রতি আরও আকৃষ্ট হইবে। এই বিশাল জীদারীর ভার, দিনকতক বাদে প্রতাপের স্বন্ধেই পড়িবে। তুমি আমি চিরদিন থাকিব না। যাহাতে প্রতাপ বাদসাহের দরবারে থাকিয়া, উজীর ও আমীর-ওমরাহদের সহিত মিলিত হইয়া, নানা বিষয়ে অভিজ্ঞতা লাভ করে, ইহা দ্বারা তাহারও ব্যবস্থা করা হইবে । সম্রাট আকবর-সাহ গুণগ্রাহী। প্রতাপ যদি কোনরূপ কৃতিত্ব দেখাইয়া, বাদসাহের মনোযোগ আকর্ষণ করিতে পারে, তাহা হইলে তাহার ভবিষ্যৎ উন্নতির পথ আরও পরিস্ফুট হইবে।” বসন্তুরায় ভ্রাতাকে তাহার এ ভয়ানক সংকল্প পরিত্যাগ করিবার জন্ত অনেক বুঝাইলেন। অনেক যুক্তি-তর্কের অবতারণা করিলেন। কিন্তু তাহাতে কোন ফলই হইল না। অগত্য বসন্তরায় প্রতাপকে জ্যেষ্ঠের আদেশ জ্ঞাপন করিলেন । & কিন্তু নিৰ্ভীক হৃদয় প্রতাপ, ইহাতে তিলমাত্র বিচলিত হইলেন না খুল্লতাতের আদেশে, তিনি আগ্রা-যাত্রার আয়োজন করিতে লাগিলেন। দ্রব্যসম্ভারপূর্ণ নৌকা সকল সজ্জিত হইতে লাগিল। শুভদিনে পিতামাতা ও গুরুজনের চরণ বন্দনা করিয়া—শঙ্কর, স্বৰ্য্যকান্ত প্রভৃতি অম্বুচরবর্গকে লইয়া প্রতাপ আগরা-যাত্রা করিলেন। প্রতাপকে বিদায় দিবার জন্য, যশোর আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা রাজধানী প্রান্ত বাহিনী যমুনা তীরে সমবেত H - এই যশোহর ত্যাগ ব্যাপারে, প্রতাপের মনে একটা মহা কুসংস্কার