পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৭৫১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বাবিংশ অধ্যায় । - *i Þ Þ নামক প্রহসন, এখানে খুব সমারোহে অভিনীত হইয়াছিল। টিকিটের দাম ছিল একটী মোহর । - এতদ্ব্যতীত “চৌরঙ্গী ড্রামাটিক-সোসাইটী” নামে এক সখেয় থিয়েটায় ১৮১৪ স্থাপিত হয়। তাহাও দীর্ঘকাল স্থায়ী হয় নাই । ১৮১৫ খ্ৰীঃ অব্দে খিদিরপুরে এক থিয়েটার স্থাপিত হইয়াছিল। এ থিয়েটারও স্বল্পজীবি। Lying Walet বলিয়া একখানি নাটক এখানে অভিনয় হইয়াছিল। কলিকাতা হইতে বহুদূরে, ফরাসী অধিকার চন্দননগরে, সেই সময়ে আর একটী থিয়েটার স্থাপিত হয়। (এপ্রিল ১৮৯৮ ) এখানে একদিন অভিনয়ের সময় এক অদ্ভূত ঘটনা ঘটে। সে ঘটনাট এই–চন্দননগরের । এই থিয়েটারে একদিন L Afocat নামক একখানি ফরাসী-নাটক অভিনয় হইতেছিল । নাটকের সংক্ষিপ্ত ঘটনা এই—এক মেষপালক কোন ধনী ব্যক্তির অধীনে চাকরী করিত। এই ধনীর ফারমের মেষগুলি দেখিতে বেশ হৃষ্টপুষ্ট, আর তাহীদের গায়ের লোমও অতি সুন্দর। হতভাগ্য মেষপালক, দুইটা মেষ চুরী করিয়া মারিয়া ফেলে। তাছার প্রভূ ভূত্যের নামে স্থানীয় জজের-আদালতে মেষহত্যা দাবীতে নালিশ করেন। নাটকের ঘটনাস্থল ইংলণ্ড । তখন থিয়েটার চলিতেছে। যে দৃশ্বে জজ বিচারাসনে উপবিই, মেঘপালক অপরাধীরূপে দণ্ডায়মান, জজ অপরাধীকে দণ্ড দিলেন—সেই দৃষ্ঠাভিনয়ের সময়ে একটা অদ্ভূত ঘটনা ঘটিল। চন্দননগর থিয়েটারের ম্যানেজার মহাশয় উইংসের পার্থে ছিলেন । একজন বাঙ্গালী মিস্ত্রি, সেই ষ্টেজে ভৃত্যরূপে কৰ্ম্মে নিযুক্ত হইয়াছিল। সে মিস্ত্রিও তখন ষ্টেজের মধ্যে। এমন সময়ে ম্যানেজার জানিতে পারেন, যে জনৈক অভিনেতার একটা দামী জিনিস তখনই চুরী গিয়াছে। সেই মিস্ত্রির উপর তাহার সন্দেহ হয়। অভিনেতা জজ, তখনও ষ্ট্রেজে বসিয়া। অপরাধী মেষপালকের উপর যেমন দগুজি হইয় গেল—ঠিক সেই সময়ে ম্যানেজার সেই অপরাধী মিস্কিকে ধরিয়া লইয়া গিয়া, সেই অভিনেতা বিচারকের সম্মুখে খাড়া করিয়া বলিলেন—“ধৰ্ম্মাবতীর । এ ব্যক্তি একজন অভিনেতার কোন জিনিস চুৰী করিয়াছে—কিন্তু কবুল করিতেছে না।” জজ, ক্রকুটভঙ্গি করিয়া তাহাকে বলিলেন—“সত্য কথা বল, তুই চোর কিনা " সেই মিঞ্জিও