পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৭৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՊՎ)8 কলিকাতা সেকালের ও একালের । যাহারা বারিষ্টারি করিয়া বিলাতে ফিরিয়া যায়, তাহারা যে অতুল ধনেশ্বর হইবে, তাহ বেশী কিছু আশ্চর্য্যের কথা নহে। বারিষ্টারদের ক্ষিঃ বড়ই বেশী। যদি তুমি উহাদের একটা প্রশ্ন করিতে চাও, তখনই একটা সোণার মোহর দিতে হইবে। যদি তিনি তোমার জন্য তিন লাইন একখানি চিঠি লিখিয়া দেন, তাহ হইলে তখনই আটাশ টাকা গুণিয়া দিতে হইবে। যদি কখনও কোন বারিষ্টারের পাল্লায় আমায় পড়িতে হয়, এই ভাবনাতেই আমি অস্থির হইয়া উঠি। একখানি উইল করিতে হইলে, তাহার দীর্ঘতা অনুসারে ব্যারি&ারের ফিঃ পাচ সোণার মোহর হইতে—আরও বেশী। বিবাহ-সম্বন্ধে চুক্তিমামার দরও এইরূপ । আর যাহারা মোকদ্দমার জন্য তাহীদের হাতে গিয়া পড়ে, তাহীদের হৃতসৰ্ব্বস্ব হওয়া অনিবাৰ্য্য। যদি কোন বারিষ্টার সাতটী বৎসর ধরিয়া একমনে রোজগার করেন, আর জুয়াখেলায় মত্ত না হন, তাহা হইলে তিনি লক্ষপতি হইয়া বিলাতে ফিরিতে পারেন।” এই ত গেল সেকালের বারিষ্টারের কথা । এখন অপরাধীদের দণ্ডের কথা কিছু বলিব । ১৭৯১ খৃঃ অব্দে ১৮ই আগষ্টের গেজেট হইতে, নিম্নলিখিত ব্যাপারগুলি জানিতে পারা যায়। উক্ত গেজেটের এক জায়গার আছে— “অনেকগুলি অপরাধী বিচারার্থে সুপ্রীমকোটো আনীত হইয়াছিল। তাহদের মধ্যে অনেকের হাত পোড়াইয়া দিবার আদেশ হইয়াছে :” বোধ হয়, সেই সময়ে গরম লোহা বা আর কোন কিছু দিয়া অপরাধীকে ছীকা দেওয়া হইত। আর কতকগুলিকে “তুড় মৃ” ঠকিবার ব্যবস্থা হয়। “টুলক কোম্পানীর দোকান হইতে যে ফিরিঙ্গিটা ঘড়ী চুরী করিয়াছিল, তাহার হাত পোড়াইয়া দেওয়া হইয়াছে।” ১৭৯৫ খ্ৰীষ্টাব্দের এক আদেশ হইতে দেখা যায়, ডাকাতির জন্য কতক গুলি বদমায়েসের ফঁাসি হইবার আদেশ হইয়াছে। সেকালের সুপ্রীমকোর্টের নিম্নলিখিত দণ্ডগুলি উদাহরণ স্বরূপ উদ্ধত করিতেছি। . (১) টমাস ফরেষ্ট—একজন গোরা। অপরাধ দুৰ্ব্ব্যবহার ও গুণ্ডামি। দণ্ডাজ্ঞী- জেলের মধ্যে গোপনে বেত্ৰাঘাত ও একমাস झांझेल ! (২) ল, করণ-ইউরোপীয়। অপরাধ—হাফ-মোহর ও রূপার গহনা

  • এই দণ্ড-কাষ্ঠ বা pilloryর মধ্যে অপরাধীঃ भाथ গলাইয় ও তাহার হাত দুখানিকে আবদ্ধ করিয়া সাধারণের সম্মুখে অপমানিত করা হইত।