পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৮১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুৰ্ব্বিংশ অধ্যায় । , ግos আরম্ভ হইয়াছে। বৰ্ত্তমান হাইকোটের নিকটে, সেকালের পোষ্টাফিস বা বড় ডাকঘর ছিল। আগে এই স্থানে, অনেক ইংরাজের বসবাস ছিল। হাইকেট স্থাপিত হওয়ার পর হইতে, ইহা উকীল ও এটর্ণি-পাড়ায় পরিণত হইয়াছে। সেকালের পুরাতন বাড়ীগুলি—এখন ছায়াবাজির দৃষ্ঠের ন্যায় অদৃশ্য হওয়ায়, তাহদের অধিকৃত স্থানে প্রাসাদতুল্য ত্রিতল চতুস্তল নুতন বাটি সমূহ নিৰ্ম্মিত হইতেছে। ওল্ড-পোষ্ট-আফিস ষ্ট্রীট পার হইয়। গেলেই, সেকালের এসপ্লানেডের বড় রাস্তা। ইহা “চাদপাল-ঘাট” পর্য্যন্ত বিস্তৃত ছিল। আজকাল যে স্থানে কলিকাতা মহানগরীর টাউনহল বর্তমান, ওয়ারেণ হেষ্টিংসের আমলে, সেই স্থানে সুপ্রীমকোটের অন্যতম জজ হাইড সাহেবের আবাস-স্থান ছিল । জনশ্রুতি এই,—জজ হাইড এই বাড়ীটির জন্য মাসিক বারশত টাকা ভাড়া দিতেন। বৎসরের মধ্যে অধিকাংশ দিনই এই বাটি উৎসব-সমাকুল চইয়া থাকিত । জজ সাহেবের পত্নী, সেকালের কলিকাতার বড় বড় ইংরাজ ও বারিষ্টারগণকে প্রত্যেক টামের” পূৰ্ব্বে একটি করিয়া ভোজ দিতেন । বৰ্ত্তমান হাইকেটের অধিকৃত স্থানে, ১৭৮৪ খ্ৰীঃ অব্দে, নূতন কোট-হাউস স্থাপিত হয় ; বারিষ্টারেরা, জজ হাইডের বাড়ী হইতে এই “টাম” আরস্তের দিনে-প্রাতরাশাদি করিয়া দলবদ্ধ হইয়া, আদালত গৃহে যাত্রা করিতেন। এখনকার দিনে এরূপ ব্যাপার অতি দূলভ ! ষ্ট্রাণ্ড-রোড। এই ইণ্ড-রোড, বর্তমান কলিকাতার এক বিশেষ গৌরবের জিনিস । প্রিন্সেপস্-ঘাট হইতে আরম্ভ হইয়া হাটখোলা পর্যন্ত এই পথটির বিস্তৃতি । ইহার পাশ্বেই নন্দনকানন সদৃশ “ইডেন-উদ্যান ।” ইহার এক দিকে বেঙ্গলব্যাঙ্ক ও বহুবিধ সওদাগরী, ও রাজকীয় কার্য্যালয় এবং অপরদিকে পোটকমিশনারদের জেটি। এখন এই ষ্ট্রাণ্ড-রোডের দুই পাশ্ব, বড় বড় প্রাসাদতুল্য অট্টালিকায় পরিপূর্ণ। কিন্তু নবাব সেরাজউদৌল যে সময়ে কলিকাত৷ আক্রমণ করেন, সে সমরে এই ইণ্ডি-রোড, গঙ্গাগর্ভে নিমজ্জিত ছিল। ১৮২৩ খৃঃ অব্দে ইহার পত্তন আরম্ভ হয়। পূৰ্ব্বোল্লিখিত লটগরি-কমিটির গঙ্গীয়তায়, এই সুদীর্ঘ রাজপথটি নিৰ্ম্মিত হইয়াছিল। এই ষ্ট্রাণ্ড-রোডের উপর, ইডেন-গার্ডেনের সান্নিধ্যে “বাৰু-ঘাট”। *গবাজারের সুপ্রসিদ্ধ রাণী রাসমণির স্বামী, বাবু রাজচন্দ্র দাস এই ঘাটটি