পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৮২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুৰ্ব্বিংশ অধ্যায় ԳԵՏ ছিলেন এখনও “ব্যারেটোস-লেন” দ্বারা, এই ব্যারেটোর স্মৃতি সংরক্ষিত। জোসেফ ব্যারেটো, একজন ধনী পটুগীজ। তিনিই এই ব্যাঙ্ক স্থাপন করেন। ১৮২৭ খৃঃ অব্দে এই ব্যাঙ্ক “ফেইল” হয়। জোসেফ ব্যারেটো, ইউরেণীয়ানদের মধ্যে একজন বিশিষ্ট ধনী ছিলেন। তিনি খুব ভালরূপ পারসী জানিতেন। মৃত্যুকালে তিনি অনেক টাকার সম্পত্তি, ধৰ্ম্মার্থে দান করিয়া যান । ক্লাইভ-স্ট্রট । লালদীঘির পূর্বদিক ছাড়িয়া, এবার আমাদিগকে ক্লাইভ-স্ত্রীটে যাইতে হইবে। এই পথটা পলাশী-বিজেতা লর্ড ক্লাইভের স্মৃতিচিহ্ন। চিরকালই এই পথের সন্নিকটবৰ্ত্তী স্থানসমূহ, ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রধান কেন্দ্র হইয়া আছে । কলিকাতার মধ্যে, ইহা অতি পুরাতন পথ। আজকাল যে বাটতে স্বয়াল-এক্সচেঞ্জ বর্তমান, লর্ড ক্লাইভ প্রথমে সেই বাটীতে বাস করিয়াছিলেন। তাহার পরে স্তর কিলিপ ফ্রান্সিস, এই বাটীতে বাস করেন। লর্ড কর্জন এই বাড়ীটি প্রস্তরফলক স্বারা চিহ্নিত করিয়া গিয়াছেন । ফ্রান্সিসের আলিপুরেও একটী বাগানবাড়ী ছিল। এই বাগান-বাড়ীর বর্ণনাকালে ফ্রান্সিস, বার্ককে লিখিয়াছিলেন ( প্রসিদ্ধ বাগ্মী এডমণ্ড বার্কের পুত্র ) “আলিপুরে আমার এক আবাস-বাটি আছে। সমগ্র বঙ্গদেশে সেরূপ মুন্দর বাড়ী আর নাই। আমি দেড়শত চাকর নিযুক্ত করিয়াছি। ঘোড়া গাড়ী সবই আছে। কিন্তু আমার কেমন একটা স্বভাবদোষ, যে আলিপুর হইতে কলিকাতায় গিয়া “হরণ” নামক ট্যাভার্ণে ক্লারেট-মদ্য দুই চারি গ্লাস না খাইলে, আমার মাথা ঠিক থাকে না।” সম্ভবতঃ ক্লাইভ-স্ত্রীটের এই বাড়ীতে, ফ্রান্সিস খুব কমই থাকিতেন । সেকালের কৌন্সিলের মেম্বর হইতে গবর্ণরের পর্য্যস্ত, দুইটা করিয়া বাড়ী রাখিতেন। বাগানবাড়ী সমূহ তাহাদের অতি প্রিয় ছিল। তাহার প্রমাণ হেষ্টিংসের হেষ্টিংস-হাউস ও লর্ড ক্লাইভের দমদমার বাগান-বাটী । ফেয়ালি-প্লেস l ফেয়ারলি-প্লেসের নাম, এখন আর কাহারও অপরিচিত নহে। প্রায় সহস্ৰাধিক কৰ্ম্মচারী এখন ফেয়ালি-প্লেসের ইষ্টইণ্ডিয়া রেল-অফিসে কাজ করেন। উইলিসন ফেয়ালি নামক এক সওদাগরের মাম হইতে, এই