পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় অধ্যায়। 8& উৎকল-বিজয়ী প্রতাপাদিত্য, যশোহরের সমীপবৰ্ত্তী হইতে না হইতে সমগ্র বঙ্গ-প্রদেশে তাহার যশোরাশি পরিব্যাপ্ত হইয়া পড়িয়াছিল। মহারাজ বসন্তরায়, বিজয়ী ভ্রাতপুত্রকে—উপযুক্ত সম্বৰ্দ্ধনা করিবার জন্য, নগর সজ্জিত করিতে-আদেশ করিলেন । নগরের সর্বস্থানই ধ্বজপত্যক ও পুষ্পমাল্যে বিভূষিত হইল। রাজপথের চারিদিকে সুবিস্তৃত গগনস্পশাঁ তোরণদ্বার সমুহ রচিত হইল । বসন্তরায় প্রত্যুদগমন করিয়া, ভ্রাতপুত্রকে নগর মধ্যে আনয়ন করিলেন । প্রতাপ উৎকল হইতে আনীত প্রতিমাদ্বয়, খুল্লতাতের হস্তে সমর্পণ করিলেন। পরম—বৈষ্ণব বসন্তরায়, তাহার সাধনা ও আরাধনার যোগ্য বিগ্রহ পাইয়া মহা সমারোহে উৎকলেশ্বরের মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতাপ ও গোবিন্দদেবের মন্দির প্রতিষ্ঠা করিয়া ধন্ত হন । Y. ইহার পরেই প্রতাপ, যশোরেশ্বরীর মূৰ্ত্তি-প্রতিষ্ঠা করেন । এই সময় হইতে, সকলেরই মনে বিশ্বাস জন্মিল--যে প্রতাপাদিত্য নিশ্চয়ই ভবানীর বরপুত্র। তাহ না হইলে যশোরেশ্বরী তাহাকে স্বপ্নাদেশ দিয়া মুক্তি-প্রতিষ্ঠা করিতে আদেশ করিলেন কেন ? * প্রচুর সেনাবলে বলীয়ান প্রতাপাদিত্য, এই সময়ে ধূমঘাটে একটা বিশাল দুর্গ নিৰ্ম্মাণ করিতে আরম্ভ করিলেন। পাচ বৎসর কালের পর, এই দুর্গের নিৰ্মাণ কাৰ্য শেষ হয়। দুর্গট দৈর্ঘ্য ও প্রস্থে পঞ্চক্রোশ । মৃন্ময়-প্রাকারে পরিবেষ্টিত হইয়াও এই দুর্গ অতি সুদৃঢ় ছিল। তাহার চারিদিকে অনলবর্ষী কামান-শ্রেণী। এরূপ জনশ্রুতি, যে এই ধূমঘাটের মধ্যে আরও চারিটা গুপ্ত দুর্গ নিৰ্ম্মিত হয়। প্রত্যেক দুর্গ সমরূপে দুর্ভেদ্য ও সুরক্ষিত। এই সকল দুর্গের মধ্যে বহুসংখ্যক গৃহ, পুষ্করিণী, উদ্যান, স্বপ্রশস্ত রাজপথ ও পণ্য-বীথিকা সমূহ নিৰ্ম্মিত হইল। পঞ্চম দুর্গের মধ্যে রাজপ্রাসাদ। ধূমঘাট নিৰ্মাণ কাৰ্য্য

  • কালীঘাটের কালীমূৰ্ত্তি আবিষ্কারের মুলে—যেমন একটা কিম্বদন্তী আছে, যশোরেশ্বরী সম্বন্ধেও সেইরূপ জনশ্রুভি বর্তমান। কমল খোজা বলিয়। প্রতাপের এক বিশ্বন্ত অমুচয় ইচ্ছামতী নদীতটে এক অপুৰ্ব্ব জ্যোতি নিরীক্ষণ করিয়া, প্রতাপকে সংবাদ দেয়। আবার যশোহরপ্রদেশের লোকের বলে, যশপাটনী নামক জনৈক ব্যক্তি নীতীরে অদৃগু জ্যোতি দর্শন BBBBS BBSBBBBB BBB BBS BBBDD BBB BBBBBDS DDBBB BBBS দেখেন, এক শিলাখণ্ড হইতে অপূৰ্ব্ব জ্যোতি বাহির হইতেছে। প্রতাপ, পরদিন বনজঙ্গলাদি কiট। ইয়। এই প্রস্তরময়ী প্রতিমার উদ্ধার করেন। মানসিংহ যশোর জয় করিবার পর এই শোরেশ্বরীকে উহার অম্বরপ্রাসাদে লইয়া যান। আজও অম্বররাজপ্রাসাদে যশোরেশ্বরীয় মুষ্টি পৰ্বমন আছে । g -