পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৮৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Եr8Եր কলিকাতা সেকালের ও একালের । কবি মাইকেল মধুসূদন বহুদিন বাস করিয়াছিলেন। সার্কিউলার রোড হইতে কিছুদূরে, কবিশ্রেষ্ঠ রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবাস-বাটী। খিদিরপুর ধরিতে গেলে, বঙ্গের তিনটা শ্রেষ্ঠ কবির লীলা-নিকেতন। হেমচন্ত্র এই সার্কিউলার গার্ডেনরিচ রোড হইতে, অৰ্দ্ধ মাইল ৰে পদ্মপুকুর নামক স্থানে বাস করিতেন। এই সার্কিউলার রোডের পশ্চিমদিক হইতে ভূকৈলাসের রাজবাটীর রাস্ত চলিয়া গিয়াছে। সার্কিউলার গার্ডেনরিচ, রোড, সরাসর মেটিয়াবুরুঞ্জে গিয়া শেষ হইয়াছে। এই মেটিয়াবুরুজে অযোধ্যার নির্বাসিত শেষ নবাব ওয়াজিদ আলিসার বাসভবন ছিল। এখন তাহা ভগ্নস্ত,পে পৰ্য্যবসিত। সার্কিউলার গার্ডেনরিচ রোডের একটী উদ্যানবাটীতে সুপ্রীমকোর্টের অন্যতম জজ-স্যর উইলিয়ম জোন্স বাস করিতেন। বর্তমানে বেঙ্গল-নাগপুর-রেলের কাৰ্য্যালয় সমূহ স্থাপিত হওয়ায়, এ অংশট বিশেষ সমৃদ্ধি সম্পন্ন হইয়া উঠিয়াছে। - - রসাপাগলা রোড। সাধারণতঃ ইহা রসারোড নর্থ ও সাউথ নামে পরিচিত। চৌরঙ্গী হইতে আরম্ভ হইয়া এই পথটা টালিগঞ্জের দিকে চলিয়া গিয়াছে। এই পথের ধারেই কালীঘাট, ভবানীপুর প্রভৃতি উপকণ্ঠবৰ্ত্তী নগর। কালীমন্দির প্রতিষ্ঠার পূৰ্ব্বে, এই স্থান ভয়ানক জঙ্গলে পরিপূর্ণ ছিল। যে স্থান আজকাল ভবানীপুর চড়কডাঙ্গ বলিয়া পরিচিত, সেই স্থান কালিমাতার আদি সেবায়েত ভুবনেশ্বরের দৌহিত্র হালদার মহাশয়গণের কয়েক ঘরের বাসের জন্ত, একটী ক্ষুদ্র গ্রামে পরিণত হয় । আগে এই সব স্থানে চোর ডাকাতের বড় ভয় ছিল। এই রসারোডের মত মুদীর্ঘ পথ কলিকাতায় খুব কমই আছে। রাস্তাটার এরূপ নামকরণ কেন হইল, তাহা অকুমান করা বড়ই কঠিন । বৈষ্ণবচরণ শেঠের ট্রীট। শেঠ ও বসাকগণ সপ্তগ্রাম হইতে কলিকাতায় আল্লির, লবণ কাটাইরা বসবাস করেন। ইহার কলিকাতার -আদিম অধিবাসী আগে ইহার গোবিন্দপুরে বাস করিতেন, মুতালুট অঞ্চলেও কয়েক ঘরের বসবাস ছিল। কলিকাতার নূতন দুর্গ নির্মাণের সময় গোবিনপুরের জর্মী গৃহীত হওয়ায়, তাহারা বড়বাজারে গিয়া বাস করেন"