পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৯১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পঞ্চবিংশ অধ্যায়। bالأترام স্যর জর্জ ম্যাকফারসন,পরবর্তীকালে হাইকোর্টের জজ হন (১৮৬৪–১৮৭৭)। ওল্ডপোষ্ট আফিস ষ্ট্রীটে, স্যর জেমস কলভিলির অাবাস-বাট ছিল। এই কলভিলি সাহেব, ১৮১৬ খ্ৰীষ্টাবে সেকালের সুপ্রীম-কোর্টের এডভোকেট জেনারেল ছিলেন। ১৮৪৮ হইতে ১৮৫৫ খ্ৰীষ্টাব্দ পৰ্য্যন্ত, ইনি সুপ্রীমকোর্টে জজীয়তী করেন। ১৮৪৮ খ্ৰীষ্টাকে স্যর উইলিয়ম পীল, প্রধান বিচারপতির পদ হইতে অবসর গ্রহণ করিলে, কলভিলি সাহেব, সুপ্রীমকোর্টের চিফ-জষ্টিস হন । 穩 এক্ষণে পুরাতন সুপ্রীম-কোর্টের কথা বলিব। এই আদালত-গৃহটী দ্বিতল ছিল। উপরের তলায়"গ্র্যাগুজুরী রূমৃ” (Grand Jury Room) আর নীচের তলায় আদালত-গৃহ ছিল। মারহাট্টা-থাতের সীমামধ্যস্থ অধিবাসীদের মধ্যে মামলা-মোকদ্দমার বিচার জন্য, সেকালের মনীষি বিচারকগণ, এই নিম্নতলস্থ কক্ষগুলির শোভা-সম্বৰ্দ্ধন করিতেন । এই আদালত-বাটীর একটী কক্ষে সুপণ্ডিত স্যর উইলিয়ম জোন্সের বিশ্রাম-স্থান ছিল। স্যর উইলিয়ম ১৭৮০ খ্ৰীষ্টাবে সুপ্রীম-কোর্টের পিউনী-জজ নিযুক্ত হন। ১৭৯৪ খ্ৰীষ্টাব্দে, এই কলিকাতাতেই তাহার দেহান্ত হয় । স্যর উইলিয়ম, প্রত্যহ প্রভাতে র্তাহার গার্ডেন-রিচের “বাঙ্গলো” হইতে পদব্রজে আদালতে আসিতেন। আদলতের মধ্যস্থ এই বিশ্রাম-কক্ষটী তাহার জ্ঞানামুশীলনের পবিত্র মন্দির ছিল । অপরাহ্নে তিনি এই আদালত-গৃহের নির্জন কক্ষে বসিয়া, পণ্ডিত ও মৌলবীদের নিকট সংস্কৃত ও আরবী, পারশী ভাষার পাঠ লইতেন । ইহঁাদের সাহায্যে তিনি সংস্কৃত ও উর্দুভাষার, বহুবিধ গ্রন্থাবলীর অনুবাদ করিতেন। এই সুগ্ৰীম-কোর্ট ব্যতীত, তখন কলিকাতার সহরে আর একটা “আপিলেটু-কোর্ট” ছিল। বৰ্ত্তমান ঘোড়-দৌড়ের মাঠের পশ্চাৎদিকে, ভবানীপুর অঞ্চলে, যে প্রাসাদতুল্য বাটা, আজকাল মিলিটারি-হাসপাতালে" পরিবৰ্ত্তিত, সেই বাড়ীতেই সেকালের জন্য এই আপীল-আদালত ছিল। এখানে দেওয়ানী ফৌজদারী, উভয়বিধ মামলাই নিম্পত্তি হইত। সমগ্র বঙ্গদেশ ব্যাপিয়া, এই আদালতের “জুরিসডিক্সান” বা বিচারসীমা নিৰ্দ্ধায়িত ছিল । পুরাকালের সাধারণের নিকট ইহা “সদর-দেওয়ানীআদালত” বলিয়া পরিচিত ছিল। ব্রিটিশ-পালপমেন্টের ১৭৭৪ খ্ৰীষ্টাব্দের ২৬এ মার্চের বিধান অনুসারে, স্বপ্রম-কোর্ট প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়। এই চার্টারের বলে ওয়ারেণ হেষ্টিংস, ফোর্টউইলিয়মের প্রথম গবর্ণর জেনারেল হন। সুপ্রম-কোটের প্রধান বিচারপতি Σ Σ Σ