পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৯৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৯২২ কলিকাতা সেকালের ও একালের । সাধন হয়। মধ্যভারতের ভালজাতির সহিত অবাধে মিশিয়া, নিজের শক্তিবলে, ইনি তাহাদের স্বশাস্ত করেন। এরূপ জনপ্রবাদ আছে, যে তিনি সম্পূর্ণ নিরস্ত্র অবস্থায়, দুৰ্দ্ধৰ বন্য ভালদিগের মধ্যে বিচরণ করিতেন। এই স্যর জেমস আউটরামই অযোধ্যার নবাব ওয়াজিদ আলি সাহকে, রাজ্যচ্যুত করিয়া, অযোধ্যা-প্রদেশ ইংরেজাধিকারভুক্ত করেন। আউটরামের ন্যায় দুঃসাহসিক যোদ্ধা সেনাপতি, সে আমলে খুব কম ছিল। যুদ্ধক্ষেত্রে তিনি কিরূপ ভীষণ মূৰ্ত্তি ধারণ করিতেন—র্তাহার ষ্ট্যাচুতে তাহাই প্রকটিত হইয়াছে। ১৮৯৩ খ্ৰীঃ অব্দে, স্যর জেমস্ আউটরামের মৃত্যু হয়। লড মেয়ো । গড়ের মাঠের মধ্য হইতে যে রাস্তাটা ধৰ্ম্মতলার দিকে গিয়াছে, সেই পথের উপর লর্ড মেয়োর ষ্ট্যাচু প্রতিষ্টিত। আমাদের স্বর্গগত সম্রাট সপ্তম এডওয়ার্ড যখন ১৮৭৫ খ্ৰীঃ প্রিপ-অব-আয়েল সরূপে এদেশে আসেন, তখন তিনি এই পিত্তল-প্রতিমার আবরণ উন্মোচন করেন। লর্ড মেয়ে ১৮৬৯ খৃষ্টাব্দে বড়লাটের পদে অভিষিক্ত হন । তাহার আমলে “ভারত-গবর্ণমেণ্টের কৃষি-বিভাগের" প্রাণপ্রতিষ্ঠা হওয়ায়, এদেশের কৃষিকার্য্যের উন্নতির স্বচনা আরম্ভ হয়। নানা স্থানে খাল-খনন, নূতন পথ্যা-নিৰ্মাণ ও রেলওয়ের প্রসার ব্যাপ্তি, ইহঁর আমলেই হইয়াছিল। ভীষণ গুপ্ত আততায়ীর হস্তে, লর্ড মেয়ে পোর্টব্লেয়ারে আহত হন। তাহার মৃতদেহ, প্রথমে কলিকাতায় আনা হয়, তৎপরে তাহার জন্মভূমি আয়ালণ্ডে পাঠান হইয়াছিল। ইহার ঠিক ছয় মাস পূর্কে, অন্য একজন পাঠান-ঘাতক কর্তৃক, হাইকোর্টের চিফ জষ্টিস, নর্মাণ সাহেবও নিষ্ঠুর ভাৰে আহত হইয়। মৃত্যুমুখে পতিত হন। তখন নূতন হাইকোট নিৰ্ম্মিত হইতেছিল বলিয়া, টাউনহলেই হাইকোর্ট বসিত। জয়পুরের রাজ্যেষ্ঠানে, লর্ড মেয়োর আর একটী ষ্ট্যাচু আছে। অক্টারলোনী মনুমেণ্ট । মফঃস্বলের অনেক লোক কলিকাতা দেখিতে আসিলে, “মন্থমেন্ট” দেখিয়া যান। এই মন্থমেন্ট ধর্শ্বতলার মাঠে সংস্থাপিত। স্যর ডেভিড অক্টালোনীর স্থতি-চিহ্ন স্থাপনের জন্য, সাধারণের চাদায়, এই মন্থমেন্ট প্রতিষ্ঠা হইয়} ছিল। ১৮২৮ খৃষ্টাৰে, কলিকাতার সৰ্ব্বোচ্চ স্মৃতিস্তম্ভ এই স্ববৃহৎ মহমেন্টের প্ৰাণ-প্রতিষ্ঠা হয়। অষ্টালোনী সেকালের একজন বীরসেনানী ছিলেন ।