পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৯৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

পঞ্চবিংশ অধ্যায় । ং২৯ শিক্ষার স্বব্যবস্থার দিকেই তাহার দৃষ্ট ছিল তাহা নহে–সংস্কৃত ও বাঙ্গলাভাষা শিক্ষার সম্বন্ধেও তিনি অনেক সুব্যবস্থা করেন। এখনও . প্রতি বৎসর তাহার মৃত্যুর দিনে, একটা উৎসবের মহদমুষ্ঠান হইয়৷ থাকে { পণ্ডিত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর । বাঙ্গালার বিদ্যাসাগর, তাহার নিজের কীৰ্ত্তিস্তম্ভ নিজেই ॐडिब्लिड করিয়া গিয়াছেন। বর্তমানকালে গোলদীঘির প্রবেশ-পথে, তাহার একটা প্রস্তরমূর্তি স্থাপিত আছে। বিদ্যাসাগরের মহত্বময় জীবনকথা বাঙ্গালীকে নূতন করিয়া বলা অনাবশ্যক । কারণ বিদ্যাসাগরকে না জানেন, এমন বাঙ্গালীই নাই । মোটের উপর কথা হইতেছে এই—সংস্কৃত কলেজের ছাত্র হইতে কৰ্ম্মময় জীবন আরম্ভ করিয়া, বিদ্যাসাগর পরিশেষে এই মহাবিদ্যালয়ের প্রিন্সিপাল বা প্রধান অধ্যাপকের পদে নিযুক্ত হইয়াছিলেন। বর্ণপরিচয়, বোধোদয়, চরিতাবলী প্রভৃতি স্কুলপাঠ্য আর মেট্রোপলিটানকলেজ এবং বঙ্গভাষী যতদিন বৰ্ত্তমান থাকিবে, ততদিন বিদ্যাসাগরের স্মৃতি রক্ষার জন্ত অন্য কোনরূপ নূতন বন্দোবস্তের প্রয়োজন হইবে না । রায় কৃষ্ণদাস পাল বাহাদুর। কলেজ ষ্ট্রীট ও হ্যারিসান রোডের মধ্যস্থলে, স্বৰ্গীয় অনারেবল রায় কৃষ্ণদাস পাল বাহাদুরের প্রস্তরমূৰ্ত্তি স্থাপিত। ১৮০৯ খৃঃ অব্দের এপ্রিল মাসে ইহঁর জন্ম হয় । ১৮৮৪ খ্ৰীঃ অব্দে জুলাই মাসে, কৃষ্ণদাসের স্বৰ্গলাভ ঘটে। ব্রিটিশ-ইণ্ডিয়ান-সভার সম্পাদক পদে নিযুক্ত থাকিয়া, তিনি এই বঙ্গীয় জমীদার-সভাটীকে নবপ্রাণে অনুপ্রাণিত, করিয়া গিয়াছেন । মিউনিসিপ্যাল কমিশনাররূপে, তিনি দরিদ্র করদাতাদের পক্ষসমর্থনে জীবনব্যাপী চেষ্টা করিয়াছেন। সেকালের হিন্দুপ্রেটিয়াট-কৃষ্ণদাসের জলস্তু কীৰ্ত্তি। তাহার ন্যায় নির্ভীক, স্পষ্টবাদী, রাজনীতিজ্ঞ সম্পাদক খুব কমই জন্মিয়াছেন। আইন প্রণেতারূপে, লাটকেন্সিলে প্রবেশ করির তিনি সমগ্র ভারতের ও বঙ্গদেশের হিতসাধন করিয়া গিয়াছেন। সামান্য অবস্থা হইতে উন্নতি লাভ করিয়া কৰ্ম্মবীর কৃষ্ণদাস, এই মরজগতে অবিনশ্বর কীৰ্ত্তি স্থাপন করিয়া—রাজদ্বারে ও সাধারণের নিকট অষাচিত সম্মান লাভ করিয়া লোকান্তরবাসী হইয়াছেন। র্তাহার উপযুক্তপুত্র ; অনারেবল § 3 *