পাতা:কাঙ্গালের ঠাকুর - জলধর সেন.pdf/৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

কাঙ্গালের ঠাকুর \98 গেলেও তিন-চারশ’ টাকার দরকার। এত টাকা কোথায় পাব ।” মা বলিলেন, “মা দুৰ্গা, তোর মনে এই ছিল মা ! যাক গোপি, বাবা, তুমি আর ও-সব কথা ভেবে মন খারাপ কোরো না । তুমি বেঁচে থাক, তোমার ভয় কি ? এ বছর নাই হোলো পূজা, আসছে বছর হবে। তুমি কিছু ভেব না ; জীব দিয়েছেন যিনি, আহার দেবেন। তিনি ৷” এই সময় ইন্দিরা “বাবা, বাব৷” বলিয়া ডাকিতেডাকিতে ঘরের মধ্যে প্ৰবেশ করিল। “বাবা, তুমি এ অন্ধকারে বসে কি করুছ ? আলো আনিব ?” গোপীনাথ বলিলেন, “না। মা, আলো এনে কাজ নেই। এই আমি মায়ের সঙ্গে দুটো কথা বলছিলাম।” ইন্দিরা বলিল, “কৈ, দিদি কৈ ? আমি যে আঁধারে কিছু দেখতে পাচ্ছি নে।” “এই যে দিদি, আমি এই জানালার পাশে দাড়িয়ে আছি।” ইন্দিরা তখন ঠাকুরমার নিকটে যাইয়া বলিল, “আলোতে বুঝি তোমাদের কথা হয় না! আঁধারের মধ্যে ভূতের মত DDDBDS SDDD S DBBS BBSS BDBD BDSDD BBB বলছিল, এবার আমাদের বাড়ী পুজো হবে না। কেন श्रव ना-शूद श्रद। हांलाभभाछे cनश्, लिनिभा ऊ आह, বাবা ত আছে! পুজো হবে না বললেই অমনি হ’লো। বুঝলে বাবা, মা সেই কথা শুনে কঁদেছিল । , আমি বললাম,