পাতা:কাঙ্গালের ঠাকুর - জলধর সেন.pdf/৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

কাঙ্গালের ঠাকুর তিনি স্পষ্ট দেখিলেন, মা তাহার মুখের দিকে চাহিয়া হান্ত করিতেছেন। এমন মনোহর মূৰ্ত্তি, এমন সহান্ত বদন তিনি ত জীবনে কখন দেখেন নাই ! তাহার। তখন মনে হইল, পূজার যে আয়োজন তিনি করিয়াছেন, তাহ হয় ত মায়ের মনের মত হয় নাই ; তঁহার মনে হইল পূৰ্ব্বদিন তিনি মায়ের যে হাসিমুখ দেখিয়াছিলেন, সে হাসিমুখ নহে— ककू6ि-डैशब्र३ लूछिदिलभ श् ब्राछिन । আবার তিনি মায়ের মূখের দিকে চাহি লেন,- দেখিলেন সত্যসত্যই মায়ের বদন প্রকেল্প । গভীর মৰ্ম্মবেদনায় তিনি চীৎকার করিয়া বলিয়া উঠিলেন, “তবে কি মা, আমার পূজা তুই নিবি না ? আমি যে তোর নাম করে, তোর গরীব-দুঃখী ছেলেদের পূজো করতে চেয়েছিলাম, তাতে কি তোর পূজো হ’ত না মা ? তবে কি তোর গরীব-দুঃখী ছেলেমেয়েদের আজ ফিরিয়ে দেব ? তাদের কি ব’লব, তোরা সব চলে যা ; তোদের পূজো করলে মায়ের পূজো হবে না ?” (V \ ܂ র্তাহার কণ্ঠরোধ হইয়া আসিল ; তিনি আর একটা কথা ও বলিতে পারিলেন না ; তঁাহার চক্ষুর সম্মুখে সমস্ত জগৎ অন্ধকার হইয়া গেল ;-– ক্ষণকালের জন্য র্তাহার চেতনা লুপ্ত হইল। পরীক্ষণেই তাহার লুপ্ত-সংজ্ঞা ফিরিয়া আসিল । তিনি বলিয়া উঠিলেন, “মহেশ, ভাল ক’রে পূজো করি ভাই ৮ মা ।