পাতা:কাফ্রি দাসের বৃত্তান্ত - লী রিচমণ্ড.pdf/১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

দ্বিতীয় ভাগ।

 কাফ্রি শিষ্যের সহিত প্রথম সাক্ষাৎ করণের অল্প দিন পরে আমি অশ্বারোহণ করিয়া তাহার সঙ্গে পুনর্ব্বার কথোপকথন করিতে তাহার প্রভুর গৃহে গেলাম। সেই ঘর আমার বাটীহইতে প্রায় দুই ক্রোশ দূর। আমি যে পর্ব্বতের উপর দিয়া গেলাম, তাহাহইতে চতুর্দ্দিক্স্থ দেশ প্রায় অতুল্য সুন্দর ও ঐশ্বর্য্যযুক্ত দৃষ্ট হইল। তাহা দর্শনে আমার মনে শিক্ষাদায়ক এই২ চিন্তা উৎপন্ন হইল।

 প্রচুর তৃণ ভক্ষণকারি মেষ সমূহ সেই পর্ব্বত ব্যাপিয়া চরিতেছিল, ও কোন২ দিগে রাখালগণ আপন২ নিয়মিত স্থানে থাকিয়া নিজ২ পাল রক্ষা করিতেছিল। ইহা আমি আপন পদ ও কর্ম্মের দৃষ্টান্ত স্বরূপ মানিলাম। কেননা সেই পর্ব্বতের নিকটবর্ত্তী কতক ক্রোশ বিস্তারিত যে প্রদেশ ছিল, তাহাতে থাকিয়া যাহাদের আমি রক্ষা করিতাম ও যাহাদের বিষয়ে মহারাখালের আগমন দিবসে আমার হিসাব দিতে হইবে এমত অনেক লোক বাস করিতেছিল। সম্মুখস্থিত মেষপাল আমার পারমার্থিক পালের দৃষ্টান্তস্বরূপ জানিয়া আমি মনে২ এই প্রার্থনা করিলাম, যে উত্তম রাখাল আপন মেষের জন্যে প্রাণ দিলেন, তিনি আমার হস্তে সমর্পিত এই লোকদের প্রতি বিশ্বস্ত হইতে আমাকে শক্তি দিউন। এবং যাহাদিগকে খ্রীষ্ট আপন রব শুনাইবেন এমত দূরদেশস্থ পালের একজন মেষ স্বরূপ আমার এই যুব কাফ্রি বন্ধু, ইহা চিন্তা করিয়া আমি আহ্লাদিত হইলাম। কেননা “এক পাল ও এক রক্ষক থাকিবে,” ইহা তাবৎ জাতীয় লোকেরা স্বীকার করিবে।

 পূর্ব্বাভিমুখে যাত্রা করত পর্ব্বতের বামদিগে সমুদ্রের