পাতা:কাব্যগ্রন্থ (তৃতীয় খণ্ড).pdf/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী মুখখানি তুলে ধোরো ; আনন্দ আভায় বড় বড় দুটি চক্ষু পল্লব-প্রচ্ছায় রেখে মোর মুখপানে প্রশান্ত বিশ্বাসে, নিতান্ত নির্ভরে। যদি চোখে জল আসে কাদিব দুজনে ; যদি ললিত কপোলে বক্ষ বাধি বাহুপাশে, স্বন্ধে মুখ রাখি হাসিও নীরবে অৰ্দ্ধ-নিমীলিত আঁখি ; যদি কথা পড়ে মনে তব কলস্বরে বলে’ যেয়ো কথা, তরল আনন্দভরে নিৰ্ব্বরের মত, অৰ্দ্ধেক রজনী ধরি’ কত না কাহিনী স্মৃতি কল্পনালহরী মধুমাখা কণ্ঠের কাকলি ; যদি গান ভালো লাগে, গেয়ে গান ; যদি মুগ্ধ প্রাণ নিঃশব্দ নিস্তব্ধ শান্ত সম্মুখে চাহিয়৷ বসিয়া থাকিতে চাও, তাই র’ব প্রিয়া ! হেরিব অদূরে পদ্ম, উচ্চতটতলে শ্রান্ত রূপসীর মত বিস্তীর্ণ অঞ্চলে প্রসারিয়া তমুখানি, সায়াহ-আলোকে । শুয়ে আছে ; অন্ধকার নেমে আসে চোখে চোখের পাতার মত ; সন্ধ্যাতারা ধীরে সন্তপণে করে পদার্পণ, নদীতীরে ᎼᎽᏬ