পাতা:কাব্যগ্রন্থ (তৃতীয় খণ্ড).pdf/১১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মানস-সুন্দরী মানসীরূপিণী ওগো, বাসনা-বাসিনী, আলোকবসন ওগো, নীরবভাষিণী, পরজন্মে তুমি কিগো মূৰ্ত্তিমতী হয়ে জন্মিবে মানবগৃহে নারীরূপ ল’য়ে অনিন্দ্যস্থদের ? এখন ভাসিছ তুমি অনন্তের মাঝে ; স্বৰ্গ হতে মৰ্ত্ত্যভূমি করিছ বিহার ; সন্ধ্যার কনকবর্ণে রাঙিছ অঞ্চল ; উষার গলিতস্বর্ণে গড়িছ মেখলা ; જૂન তটিনীর জলে করিছ বিস্তার, তলতল ছলছলে ললিত যৌবনখানি ; বসন্ত বাতাসে চঞ্চল বাসনাব্যথা সুগন্ধ নিশ্বাসে করিছ প্রকাশ ; নিযুপ্ত পূর্ণিমা রাতে নির্জন গগনে, একাকিনী ক্লান্ত হাতে বিছাইছ দুগ্ধশুভ্র বিরহ-শয়ন ; শরৎ-প্রত্যুষে উঠি করিছ চয়ন শেফালি, গাঁথিতে মালা, ভুলে গিয়ে শেষে, তরুতলে ফেলে দিয়ে, আলুলিত কেশে গভীর অরণ্য ছায়ে উদাসিনী হ’য়ে বসে থাক ; ঝিকিমিকি আলোছায়া ল’য়ে কম্পিত অঙ্গুলি দিয়ে বিকাল বেলায় বসন বয়ন কর বকুলতলায় ; > o○