পাতা:কাব্যগ্রন্থ (তৃতীয় খণ্ড).pdf/১৮৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী আমি তব স্নেহবচন শুনিয়া পেয়েছি স্বরগমৃধা। সেই মোর ভালো—সেই বহু মানি, তবু মাঝে মাঝে কেঁদে ওঠে প্রাণী, স্বরের খাদ্যে জান ত মা বাণী নরের মিটে না ক্ষুধা । যা হবার হবে, সে কথা ভাবি না, মাগো, একবার ঝঙ্কারো বীণা, ধরহ রাগিণী বিশ্ব-প্লাবিনী অমৃতউৎসধারা । যে রাগিণী শুনি’ নিশি দিনমান বিপুল হর্ষে দ্রব ভগবান মলিন মর্ত্যমাঝে বহমান নিয়ত আত্মহারা । যে রাগিণী সদা গগন ছাপিয়া হোমশিখা সম উঠিছে কঁাপিয়া, অনাদি অসীমে পড়িছে বাপিয়া বিশ্বতন্ত্রী হ’তে । যে রাগিণী চির জন্ম ধরিয়া চিত্তকুহরে উঠে কুহরিয়া অশ্র হাসিতে জীবন ভরিয়া ছুটে সহস্ৰ স্রোতে । > ԳՀ