পাতা:কাব্যগ্রন্থ (তৃতীয় খণ্ড).pdf/২০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সোনার তরী কৌতুহলবশে ; আমি তাহাদের সনে করিতেছি তোমারে বেষ্টন মনে মনে কল্পনার জালে – সুদুৰ্গম দূরদেশ,— পথশূন্য তরুশূন্য প্রান্তর অশেষ, মহাপিপাসার রঙ্গভূমি ; রৌদ্রালোকে জ্বলন্ত বালুকারাশি সূচি বিধে চোখে ; দিগন্তবিস্তৃত যেন ধুলিশয্যা পরে জুরাতুরা বহুব্ধর লুটাইছে পড়ে’ তপ্তদেহ, উষ্ণশ্বাস বহ্নিজ্বালাময়, শুষ্ককণ্ঠ, সঙ্গহীন, নিঃশব্দ, নির্দয় । কতদিন গৃহপ্রান্তে বসি বাতায়নে দূরদূরান্তের দৃশ্য আঁকিয়াছি মনে চাহিয়া সম্মুখে ;–চারিদিকে শৈলমালা, মধ্যে নীল সরোবর নিস্তব্ধ নিরালা স্ফটিক-নিৰ্ম্মল স্বচ্ছ ; খণ্ড মেঘগণ মাতৃস্তনপানরত শিশুর মতন পড়ে’ আছে শিখর আঁকড়ি ; হিম-রেখা নীলগিরিশ্ৰেণীপরে দূরে যায় দেখা দৃষ্টিরোধ করি ; যেন নিশ্চল নিষেধ উঠিয়াছে সারি সারি স্বর্গ করি ভেদ > જેર